নয়াদিল্লি: টাইটেল স্পনসর নিয়ে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত না-হলেও সংযুক্ত আরব আমিরশাহীতে ২০২০ আইপিএল আয়োজনের সবুজ সংকেত পেলে গেল বিসিসিআই৷ সোমবার আইপিএল চেয়ারম্যান ব্রিজেশ প্যাটেল কেন্দ্রীয় সরকারের কাছ থেকে লিখিত সম্মতি পাওয়ার বিষয়টি জানিয়েছেন৷

করোনা আবহে দেশে না-হলেও বিদেশের মাটিতে যে আইপিএল ২০২০ হচ্ছে সোমবার পরিষ্কার হয়ে গেল৷ এদিন সংযুক্ত আরব আমিরশাহীতে আইপিএলের ত্রয়োদশ সংস্করণ পরিচালনার জন্য বিসিসিআই-কে সবুজ সংকেত দিয়ে দিল কেন্দ্রীয় সরকার৷ আগেই মৌখিক অনুমোদন মিলেছিল৷ কিন্তু এদিন আনুষ্ঠানিক অর্থাৎ লিখত অনুমোদন পেয়ে গেল বিসিসিআই৷

আইপিএল চেয়ারম্যান ব্রিজেশ প্যাটেল এদিন জানান, ‘সরকারের তরফ থেকে লিখিত সম্মতি আমাদের হাতে এসে পৌঁছেছে। সরকারের তরফ থেকে মৌখিক সম্মতি পাওয়ার পরেই আমরা আমিরশাহী ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে কথাবার্তা এগিয়েছিলাম। আর এখনও আমাদের কাছে সরকারের লিখিত সম্মতিও এসে গিয়েছে। এবার আমরা ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোকে বিষয়টি জানিয়ে দেব।’

তিনি আরও বলেন, ‘স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয় (এমএইচএ) এবং বিদেশমন্ত্রক (এমইএ) উভয়ের কাছ থেকে লিখিতভাবে অনুমতি আমাদের কাছে এসে গিয়েছে৷’ কোনও ভারতীয় ক্রীড়া সংস্থা বিদেশে ঘরোয়া টুর্নামেন্ট স্থানান্তর করতে চাইলে, সে দেশের পাশাপাশি দেশের স্বরাষ্ট্র, বিদেশ ও ক্রীড়া মন্ত্রকের ছাড়পত্রের প্রয়োজন হয়।

এবারের আইপিএল আমিরশাহীতে শুরু হবে ১৯ সেপ্টেম্বর৷ ফাইনাল ১০ নভেম্বর৷ আমিরশাহীর তিনটি শহর শারজা, আবুধাবি ও দুবাইতে অনুষ্ঠিত হবে আইপিএল ত্রয়োদশ সংস্করণের ম্যাচগুলি। ৫৩ দিনের টুর্নামেন্টের জন্য ইতিমধ্যেই আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজি গুলি মরু শহরে তাদের বেস ক্যাম্পের খোঁজ শুরু করে দিয়েছে৷

তবে সরকারিভাবে আইপিএল আয়োজনের ছাড়পত্র মিললেও বিশ্বের সবচেয়ে বড় ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট লিগের টাইটেল স্পনসর এখনও ঠিক হয়নি৷ কারণ ভারত-চিন রাজনৈতিক পরিস্থিতি উতপ্ত হওয়ার পর চলতি বছর আইপিএলের টাইটেল স্পনসর থেকে সরে গিয়েছে চিনা মোবাইল সংস্থা ভিভো৷ তারপরই ২০২০ আইপিএলে টাইটলে স্পনসর খুঁজতে শুরু করে দিয়েছে৷ এই পরিস্থিতিতে মেগা এই ক্রিকেট টুর্নামেন্টের টাইটেল স্পনসর হিসেবে সোমবারই উঠে এসেছে বাবা রামদেবের আয়ুর্বেদ সংস্থা পতঞ্জলির নাম।

আইপিএলের টাইটেল স্পনসর হিসেবে চেয়ারম্যান বলেন, সম্ভাবত ১৮ অগস্টের মধ্যে আইপিএলের টাইটেল স্পনসর ঘোষণা করে দেবে বিসিসিআই। আগ্রহী সংস্থাগুলিকে বিড জমা দেওয়ার জন্য সাত দিনের উইন্ডো থাকবে। এদিনই রামদেবের সংস্থার মুখপাত্র এসকে তিজারাওয়ালা পিটিআই-কে জানান, ‘আমরা এ ব্যাপারে ভাবচ্ছি৷ এ বারের আইপিএলে আমরা টাইটেল স্পনসর হতে চাই। সারা বিশ্বে পতঞ্জলি ব্র্যান্ডের বাজার তৈরি করাই আমাদের লক্ষ্য। তাই আমরা বিষয়টি বিবেচনা করছি৷’

স্পনসর নিয়ে বোর্ডের মাথা ব্যাথা থাকলেও কেন্দ্রীয় সরকারের সবুজ সংকেতের অপেক্ষায় ছিল ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলি। কিন্তু এদিন আইপিএল চেয়ারম্যানের ঘোষণার পরেই ত্রয়োদশ আইপিএলে নিয়ে ফ্রন্টফুটে ব্যাটিং শুরু করে দিল ফ্র্যাঞ্জাইজি মালিকরা৷ শোনা গিয়েছে ইতিমধ্যেই মরু শহরে তাদের বেস ক্যাম্পের খোঁজ শুরু করে দিয়েছে ফ্র্যাঞ্চাইজি মালিকরা৷ ২২ অগস্ট দুবাই উড়ে যাচ্ছে মহেন্দ্র সিং ধোনির চেন্নাই সুপার কিংস। বাকি ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোও আমিরশাহীতে উড়ে যাওয়ার পরিকল্পনাও দ্রুত সেরে ফেলতে চায়৷

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা