মুম্বই: পূর্ব পরিকল্পনামতোই বৃহস্পতিবার বাণিজ্যনগরীতে বৈঠক সারলেন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ও জাতীয় ক্রিকেট অ্যাকাডেমির ডিরেক্টর অফ ক্রিকেট অপারেশন রাহুল দ্রাবিড়। জাতীয় ক্রিকেট অ্যাকাডেমি নিয়ে একাধিক ইস্যু ছিল এদিনের আলোচনার বিষয়বস্তু। পূর্ব নির্ধারিত সূচি অনুযায়ী মুম্বইয়ে বোর্ডের সদর দফতরে মুখোমুখি বসেছিলেন জাতীয় দলের দুই প্রাক্তন সতীর্থ। তবে আলোচনা শেষে বৈঠক নিয়ে বিশেষ মুখ খুলতে চাননি কেউই।

পিঠের চোট সারিয়ে প্রায় চার মাস পর জাতীয় দলে কামব্যাক করতে চলেছেন স্পিডস্টার জসপ্রীত বুমরাহ। কিন্তু জাতীয় দলে কামব্যাক করার আগে রঞ্জি খেলে বুমরাহকে উত্তীর্ণ হতে হবে ফিটনেস টেস্টে। বোর্ডের তরফ থেকে এমনই ফতোয়া জারি করা হয়। কিন্তু রঞ্জি খেলে ফিটনেস পরীক্ষা দিতে রাজি ছিলেন না বুমরাহ। বরং আরেকটু সময় নিয়েই একেবারে আগামী বছর শুরুতে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে মাঠে নামতে চেয়ে বোর্ড সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের কাছে আবেদন করেন বুমরাহ। এরপর এনসিএ’র সঙ্গে আলোচনা করেই বুমরাহর আর্জি মেনে নেওয়া হয় বোর্ডের তরফ থেকে। কারণ চোট সারিয়ে রিহ্যাব পিরিয়ডটা দ্রাবিড়ের তত্ত্বাবধানে এনসিএ’তেই কাটিয়েছেন বুমরাহ।

আরও পড়ুন: ইডেনের ড্রেসিংরুম থেকে বের করে দেওয়া হল জাতীয় নির্বাচককে

আর বুমরাহর ঘটনার ২৪ ঘন্টা কাটতে না কাটতেই সৌরভ-দ্রাবিড়ের আজকের এই বৈঠক যে গুরুত্বপূর্ণ ছিল, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টা নাগাদ বোর্ডের সদর দফতরে হাজির হন দ্রাবিড়। ম্যারাথন বৈঠকের পর যখন দফতর থেকে বার হন, ঘড়ির কাঁটা তখন বিকেল ৫টা ছুঁই-ছুঁই। বৈঠক সেরে বেরিয়ে অপেক্ষমান সাংবাদিকদের যদিও আলোচনা প্রসঙ্গে কিছুই জানাতে চাননি দ্রাবিড়। পক্ষান্তরে সৌরভ জানান জাতীয় ক্রিকেট অ্যাকাডেমি নিয়ে একেবারে সাধারণস্তরে আলোচনা হয়েছে দু’জনের মধ্যে।

আরও পড়ুন: বক্সিং ডে টেস্টে ‘স্যান্ডপেপার গেট’ নিয়ে স্মিথকে বিদ্রুপ

বৈঠকের পাশাপাশি ক্রিকেট অ্যাডভাইসরি কমিটি প্রসঙ্গে প্রশ্নের উত্তরেও মুখে কুলুপ আঁটেন বোর্ড সভাপতি। সূত্রের খবর, অ্যাপেক্স কাউন্সিলের তরফে সৌরভকে প্রশ্ন করা হয় নয়া নির্বাচক কমিটি গঠনে দলের সিনিয়র ক্রিকেটারদের ভূমিকা কতটা থাকবে। এব্যাপারে প্রকাশ্যে কিছুই জানাতে চাননি প্রাক্তন অধিনায়ক। পাশাপাশি এশিয়া একাদশের দলগঠন নিয়েও এদিন চুপ ছিলেন বোর্ডের নয়া সভাপতি।