নয়াদিল্লি: করোনার আপদকালীন ফান্ডে ৫১ কোটি টাকা অনুদানের কথা ঘোষণা করল ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। করোনার কারণে দেশজুড়ে জারি হয়েছে চরম স্বাস্থ্য সংকট। এমতাবস্থায় দেশের বিপর্যয় মোকাবিলা তহবিলে এদিন সাহায্যের কথা ঘোষণা করেন খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আর প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণার অনতিপরেই তাঁর আপদকালীন ফান্ডে বড় অঙ্কের অর্থ সাহায্যের কথা ঘোষণা করা হয় বিসিসিআই’য়ের তরফ থেকে।

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়, প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়, সচিব জয় শাহ এবং বিসিসিআই’য়ের অন্যান্য কর্মকর্তারা বিভিন্ন রাজ্য ক্রিকেট সংস্থার সঙ্গে একত্রিত হয়ে প্রধানমন্ত্রীর আপদকালীন ফান্ডে ৫১ কোটি টাকা অনুদান দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন। করোনা ভাইরাসের ভয়াবহতা দেশের স্বাস্থ্যক্ষেত্রে এক জরুরি অবস্থা জারি করেছে। বিসিসিআই এমন কঠিন সময় দেশের জন্য সর্বোতভাবে সাহায্য করতে প্রস্তুত।’

রাজ্য সংস্থাগুলোর সঙ্গে একজোট হয়ে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড সংকটের সময় প্রধানমন্ত্রী যে সকল উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন, বিবৃতিতে সেগুলো তদারকি করারও আশ্বাস দিয়েছে পৃথিবীর সবচেয়ে ধনী ক্রিকেট বোর্ড। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড ছাড়াও সংকটের সময় এদিন অনুদানের জন্য এগিয়ে এসেছে মহারাষ্ট্র ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন ও সৌরাষ্ট্র ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন। সিএবির পদাঙ্ক অনুসরণ করে তারা মুখ্যমন্ত্রীর তহবিলে অর্থসাহায্যের কথা ঘোষণা করেছে।

মারণ ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে এগিয়ে এসেছেন সুরেশ রায়না। উত্তরপ্রদেশ সরকারের আপদকালীন ফান্ডে ৫২ লক্ষ টাকা তুলে দিয়েছেন চেন্নাই সুপার কিংস তারকা। গতকাল মুখ্যমন্ত্রী ও প্রধানমন্ত্রীর তহবিলে ২৫ লক্ষ টাকা করে অনুদানের কথা ঘোষণা করেছিলেন মাস্টার-ব্লাস্টার। মুখ্যমন্ত্রীর তহবিলে আগেই ২৫ লক্ষ টাকা অনুদান ঘোষণা করেছিল সিএবি। এদিন সিএবি’র ৬৬ জন ম্যাচ অবজার্ভারের প্রত্যেকে ২ হাজার টাকা করে মোট দেড় লক্ষ টাকা অনুদান করেন মুখ্যমন্ত্রীর তহবিলে। এছাড়া সিএবি’র ৮২ সদস্যের স্কোরার গ্রুপ নিজেদের প্রাত্যহিক পারিশ্রমিক যোগ করে সর্বমোট ৭৭,৪২০ টাকা মুখ্যমন্ত্রীর তহবিলে দান করেছেন।