নয়াদিল্লি: ১৬ জন ইতালিয় পর্যটক সহ সর্বমোট ৩১ জনের দেহে ইতিমধ্যেই মিলেছে মারণ ভাইরাসের নমুনা। স্বাভাবিকভাবেই বিশ্বের বাকি দেশগুলোর মতো নোভেল করোনা আতঙ্কে এখন তটস্থ ভারতও। মারণ ভাইরাসের কবলে ইতিমধ্যেই বিশ্বের ৬০টিরও বেশি দেশ। একের পর এক স্পোর্টস ইভেন্ট বাতিল হচ্ছে বিশ্বজুড়ে। বিভিন্ন টুর্নামেন্ট থেকে নাম প্রত্যাহার করে নিচ্ছেন অ্যাথলিটরা। এমন সময় করোনা আতঙ্ক গায়ে মেখেই আগামী ২৯ মার্চ শুরু হচ্ছে আইপিএলের ত্রয়োদশ সংস্করণ।

আর করোনা আতঙ্কের মধ্যে কোটিপতি লিগ সঠিক সময়ে শুরু হলেও ভাইরাস রুখতে গ্রহণ করা হবে প্রয়োজনীয় সমস্তরকম ব্যবস্থা। তবে টুর্নামেন্ট নির্বিঘ্নে অনুষ্ঠিত করতে বদ্ধপরিকর তিনি, জানালেন বোর্ড প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। প্রাথমিকভাবে বোর্ড প্রেসিডেন্ট জানিয়েছিলেন করোনার বিশেষ কোনও প্রভাব আইপিএলে পড়বে না। কিন্তু দেশজুড়ে মারণ ভাইরাস বড়সড় আকার ধারণ করতেই নড়েচড়ে বসল বিসিসিআই। বোর্ড করোনা ভাইরাস রুখতে আইপিএলে বিশেষ কী ব্যবস্থা গ্রহণ করছে?

আরও পড়ুন: ভেন্যু স্টেজিং ফি নিয়ে অসন্তোষ, বিসিসিআই’কে চিঠি দিচ্ছে আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলি

প্রশ্নের উত্তরে এক গ্লোবাল ক্রিকেটিং ওয়েবসাইটকে মহারাজ বলেন, ‘করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে বোর্ড সমস্ত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।’ পরে বোর্ডের এক আধিকারিক সূত্রে জানা গিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকারের নির্দেশ মেনে কিছু আগাম সতর্কতামূলক গাইডলাইন তৈরি করছে বিসিসিআই। আর সেই গাইডলাইন খুব শীঘ্রই পাঠিয়ে দেওয়া হবে বিভিন্ন ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোর কাছে। শোনা যাচ্ছে আসন্ন আইপিএলে করোনা রুখতে অনুরাগীদের সঙ্গে ক্রিকেটারদের হ্যান্ডশেকিংয়ে নিষেধাজ্ঞা আনছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। পাশাপাশি সেলফি নেওয়ার ক্ষেত্রেও আরোপ হতে পারে বিভিন্ন বাধা-নিষেধ।

আরও পড়ুন: ভাইকে হেনস্থা, ম্যাচ শেষে ফেন্সিং টপকে গ্যালারিতে টটেনহ্যাম ফুটবলার

২৯ মার্চ মুম্বইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে শুরু হচ্ছে আইপিএলের ত্রয়োদশ সংস্করণ। ফাইনাল হবে ২৪ মে। উদ্বোধনী ম্যাচে মুখোমুখি গতবারের চ্যাম্পিয়ন মুম্বই ইন্ডিয়ান্স ও চেন্নাই সুপার কিংস৷ দেশি ও বিদেশি ক্রিকেটারদের নিয়ে ক্রিকেটের এই মেগা ইভেন্টে এবার করোনা ভাইরাস আতঙ্ক।