ক্রাইশ্চচার্চ: নিউজিল্যান্ড বোলাররা তাঁর দলের ব্যাটসম্যানদের ভুল করতে বাধ্য করেছে। আর কিউয়ি বোলারদের পাতা ফাঁদে পা দিয়ে ব্যাটসম্যানরা নিজেদের পরিকল্পনা কার্যকর করতে ব্যর্থ হয়েছে। বিরাট কোহলির কাছে সিরিজ হারের সারসংক্ষেপ এটাই।

সোমবার ক্রাইশ্চচার্চে টেস্ট সিরিজে হোয়াইটওয়াশের পর প্রত্যক্ষভাবে না দুষলেও ব্যাটসম্যানদেরকেই মূলত দায়ী করলেন ভারত অধিনায়ক। সাংবাদিক সম্মেলনে কোহলি এদিন বলেন, ‘সিরিজে তাঁর বোলারদের হাতে পর্যাপ্ত রসদ জোগাতে বারবারই ব্যর্থ হয়েছে ব্যাটসম্যানরা। বোলারদের জন্য ব্যাটসম্যানরা যখন রসদ জোগাতে ব্যর্থ হয়, তখন সেটা যে কোনও দলের কাছেই খুব হতাশার। বিদেশের মাটিতে সিরিজ জয়ের জন্য ব্যাটে-বলে ব্যালান্স পারফরম্যান্সের প্রয়োজন হয়।’

পৃথ্বী শ, চেতেশ্বর পূজারা এবং হনুমা বিহারীর অর্ধশতরানে ভর করে প্রথম ইনিংসে তবু আড়াইশোর কাছাকাছি রান তুলতে পেরেছিল দল। কিন্তু দ্বিতীয় ইনিংসে বোল্ট-সাউদি জোড়া ফলায় দলের হয়ে পূজারার সংগ্রহ সর্বোচ্চ ২৪ রান। এ প্রসঙ্গে কোহলির জানান, ‘প্রথম ইনিংসে আমরা ভালোই ব্যাট করেছি। তবে নিউজিল্যান্ড বোলারদের কৃতিত্ব প্রাপ্য। সঠিক এরিয়ায় বল রেখে ওরা আমাদের নাজেহাল করেছে।’ উল্লেখ্য টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ আত্মপ্রকাশের পর এটাই ভারতের প্রথম সিরিজ হার। তাও আবার হোয়াইটওয়াশ। স্বাভাবিকভাবেই টেস্টের পয়লা নম্বর দলকে হারিয়ে তৃপ্ত কিউয়ি দলনায়ক কেন উইলিয়ামসন।

ম্যাচ শেষে তিনি বলেন, ‘ভারত বিশ্বমানের দল। তাই ওদের হারানো দারুণ তৃপ্তির বিষয়। জেমিসন দারুণ আকর্ষণীয় এক প্রতিভা। দু’টি ম্যাচেই বল এবং ব্যাট হাতে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রেখেছে।’ এদিকে ম্যাচ এবং সিরিজ হারের কারণ দর্শানোর পাশাপাশি ঋষভ পন্তের প্রসঙ্গ ওঠায় ফের তাঁর সমর্থনে সুর চড়ালেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি। ভারত অধিনায়কের কথায়, ‘কাউকে সুযোগ দেওয়ার জন্যও সঠিক সময় বেছে নেওয়াটাও ভীষণ জরুরি। শুরুতেই যদি কাউকে দূরে ঠেলে দেওয়া যায়, তাহলে স্বাভাবিকভাবেই তাঁর আত্মবিশ্বাসে চিড় ধরে।’

সমস্ত দিক বিশ্লেষণ করে কোহলির কথায়, ‘আমরা দলগত ভাবে পারফর্ম করতে ব্যর্থ হয়েছি। নির্দিষ্ট কাউকে এই হারের কারণ হিসেবে দেখানোতে আমি বিশ্বাসী নই। আমাদের একসঙ্গে এই হার গ্রহণ করতে হবে।’