বোলপুর: অবশেষে সিদ্ধান্ত বদল করল বিশ্বভারতী। দোলের দিনই শান্তিনিকেতনে অনুষ্ঠিত হবে ঐতিহ্যবাহী বসন্ত উৎসব। কিছুদিন আগেই বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ জানিয়েছিল দোলের দিন শান্তিনিকেতনে অনুষ্ঠিত হবে না বসন্ত উৎসব। ১৮ ফেব্রুয়ারি বসন্ত উৎসবের কথা ভেবেছিল বিশ্বভারতী। এবার সেই সিদ্ধান্ত থেকে সরে দাঁড়াল বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ।

প্রতি বছর বসন্ত উৎসব উপলক্ষে মানুষের ঢল উপচে পড়ে শান্তিনিকেতনে। গত বছর কয়েক জন অসুস্থ হয়ে পড়েছিল। সূত্রের খবর, ভিড়ের চাপ সামলাতে না পেরেই দোলের অনেক আগে বসন্ত উৎসবের পরিকল্পনা করেছিল বিশ্বভারতী। পৌষমেলা ও বসন্ত উৎসবকে কেন্দ্র করে শান্তিনিকেতনের মানুষের নানা অভিযোগ রয়েছে বহুদিন ধরেই। অভিযোগের কারণ, এই দুই উৎসবকে কেন্দ্র করে শান্তিনিকেতনের পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে। গত বছর বসন্ত উৎসবের শেষে প্রচুর মদের খালি বোতল উদ্ধার হয় ক্যাম্পাস চত্বর থেকে। এছাড়াও ভিড়ের চাপে গতবার আটকে পড়েছিল অ্যাম্বুলেন্স।

বিশ্বভারতীর সিদ্ধান্তে আগেই অসন্তোষ প্রকাশ করেছিলেন রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। পরে বিশ্বভারতীর উপাচার্যের সঙ্গে কথা বলেন পার্থবাবু। ঐতিহ্যবাহী বসন্ত উৎসব দোলের দিন করার জন্য সব রকম সহযোগিতা করতে এগিয়ে এসেছেন তিনি। তাঁরই হস্তক্ষেপে বিশ্বভারতী সিদ্ধান্ত বদল করেছে বলে সূত্রের খবর।

প্রতি বছর বসন্ত উৎসব উপলক্ষে শান্তিনিকেতনে যাওয়ার জন্য অপেক্ষা করে থাকে বহু মানুষ। নানা রকম অনুষ্ঠান হয় উৎসবকে ঘিরে। পড়ুয়া থেকে শুরু করে শিল্পী সাহিত্যিকদের মধ্যেও প্রবল আগ্রহ থাকে এই উৎসবকে ঘিরে। আবির মেখে রাঙিয়ে দেওয়া যায় অপরকে। শান্তিনিকেতনে দোলের দিনই বসন্ত উৎসব অনুষ্ঠিত হবে বলে খুশি নানা মহল।