স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: করোনাভাইরাস মোকাবিলায় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কে সচেতন করতে এবার পথে নামল ইমামরা। বৃহস্পতিবার উত্তর ২৪ পরগনার জেলার গারুলিয়া পুরসভা এলাকার মোট ৬ টি মসজিদের ইমামরা এদিন পথে নামেন। স্থানীয় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষদের মূলত করোনা সম্পর্কে সচেতনতার পাঠ দিতেই পথে নামেন। যাতে, আজ শুক্রবার তথা জুম্মাবারে মুসলিম ভাইয়েরা কোনও অবস্থাতেই যেন নমাজ পাঠের জন্য বাড়ির বাইরে না বেরোয়, সেই বিষয়টি তুলে ধরা হয়।

সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কে সচেতন করতে হ্যান্ড মাইক নিয়ে পায়ে হেঁটে গারুলিয়া পুরসভা এলাকার বিভিন্ন রাস্তায় ঘুরে ঘুরে প্রচার করলেন স্থানীয় ৬ টি মসজিদের ইমামরা। ইমামদের এই সচেতনতা প্রচারে উপস্থিত ছিল নোয়াপাড়া থানার পুলিশ কর্মীরাও। এদিন দুপুরে গারুলিয়া পুরসভা এলাকার বিভিন্ন অলিগলি থেকে শুরু করে মেন রোড সর্বত্রই মাইক হাতে প্রচার করেন ইমামরা।

তাঁরা সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কে সচেতন করে বলেন, “করোনা ভাইরাসের সংক্রমন থেকে বাঁচতে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশ সকলকে মেনে চলতে হবে। লকডাউন পরিস্থিতিতে ঘর থেকে বাইরে বেরোনো চলবে না। শুক্রবারের নামাজ পাঠ ঘরেই পড়তে হবে প্রত্যেককে। যতদিন না পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়, ততদিন সকলকে সরকারি নির্দেশ মেনে গৃহবন্দী থাকতে হবে।

ফাইল ছবি

এই রোগ একবার শরীরে ছড়িয়ে পড়লে মনুষ্যজাতি শেষ হয়ে যাবে, সমাজ, সভ্যতা সংস্কৃতি সব শেষ হয়ে যাবে। তাই নিজেদের এই সময় আড়াল করে রাখতে হবে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসলে আবার সকলে কাজকর্ম শুরু করবেন।”

ইমামদের এই সচেতনতা মূলক প্রচার গারুলিয়া পুরসভা এলাকার সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মধ্যে বেশ ভালো সাড়া ফেলেছে। শুধু তাই নয়,এদিন পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকেও এলাকার বাসিন্দাদের কাছে বারবার অনুরোধ করা হয় যাতে এই লক ডাউন পরিস্থিতিতে অযথা কেউ যেন ঘর থেকে বাইরে না বেরোয়।