ব্যারাকপুর: বিস্ফোরণের তীব্রতা কেন এতটা হল, তা তদন্ত করে দেখা হবে। এমনটাই জানিয়েছেন বারাকপুর পুলিশ কমিশনার মনোজ ভার্মা। বৃহস্পতিবার বিকেলে তীব্র বিস্ফোরণে কেঁপে ওঠে নৈহাটি। বিস্ফোরণের তীব্রতা এতটাই ছিল যে গঙ্গার ওপারে বেশ কয়েকটি বাড়িতে ফাটল দেখা গিয়েছে। ভেঙে পড়ে বাড়ির একাংশ।

এই ঘটনায় ইতিমধ্যে এনআইএ তদন্তের দাবি জানিয়েছে বিরোধীরা। যদিও এই ঘটনার পরেই বারাকপুর পুলিশ কমিশনার মনোজ ভার্মা নৈহাটি’র ওই বিস্ফোরণ স্থলে আসেন এবং পুরো ঘটনা খতিয়ে দেখেন।

পুরো এলাকা খতিয়ে দেখার পরেই মনোজ ভার্মা বলেন “নৈহাটি র এই বিস্ফোরনের ঘটনার তদন্ত চলছে। দেবক গ্রাম থেকে যে বাজির মশলা উদ্ধার হয়েছে সেগুলি এখানে এনে নিষ্ক্রিয় করা হচ্ছিল। তবে এতটা বিস্ফোরন কেন হল তা তদন্ত করে দেখা হবে। এই বিস্ফোরনের ফলে স্থানীয় বাসিন্দারা আমাদের পুলিশের ওপর যে চড়াও হয় তাতে আমাদের চারজন আহত হয়েছে। যদিও তাদের চিকিৎসা চলছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ কমিশনার।

অন্যদিকে, এই বিস্ফোরণের ঘটনার কথা মুখ্যমন্ত্রীর কাছে পৌঁছলে তিনি বারাসাতে তার সভায় উপস্থিত নৈহাটি বিধায়ক পার্থ ভৌমিককে দ্রুত বিস্ফোরনস্থলে পাঠিয়ে দেন। বিধায়ক পার্থ ভৌমিক ঘটনাস্থলে এসে বিস্ফোরণে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করেন। পার্থ বাবু বলেন “এটি একটি অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা।

আমার ভীষন খারাপ লাগছে। এই ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্থ মানুষগুলো খুবই দরিদ্র। আমি এই বিস্ফোরণে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার গুলির পাশে আছি। আমরা এদের সব ধরনের ক্ষতপূরণ দেওয়ার ব্যবস্থা করবো। আর পরবর্তীতে এই সমস্ত ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারগুলির সঙ্গে পুলিশ প্রশাসনকে মুখোমুখি বসিয়ে বৈঠক করা হবে।”

প্রশ্ন অনেক: দ্বিতীয় পর্ব