ব্যারাকপুর: ফুল বদল করে বিজেপি শিবিরে নাম লেখাতে প্রস্তুত বীজপুরের বিধায়ক তথা মুকুল রায়ের পুত্র শুভ্রাংশু রায়। ঘাস ফুল ছেড়ে পদ্ম ফুলে নাম লেখানোর জন্য তিনি দু’টো শর্ত চাপিয়েছেন। শুভ্রাংশু রায়ের দেওয়া শর্ত মানতে আপত্তি নেই বলে জানিয়ে দিয়েছেন বারাকপুর(সাংগঠনিক) জেলা বিজেপির সভানেত্রী ফাল্গুনী পাত্র।

শনিবার সকালের দিকে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে চাঞ্চল্যকর দাবি করেন বীজপুরের তৃণমূল বিধায়ক শুভ্রাংশু। বীজপুর বিধানসভা এলাকায় রেলের প্রস্তাবিত কারখানা আগামী দুই বছরের মধ্যে সম্পন্ন করতে হবে। এবং ওই কারখানায় ৩০ শতাংশ কর্মী নিয়োগ করতে হবে। এই দুই শর্ত মান্যতা পেলেই বিজেপি শিবিরে শুভ্রাংশু নাম লেখাবেন।

এই বিষয়ে বিজেপি নেত্রী তথা বারাকপুর জেলা বিজেপির সভানেত্রী ফাল্গুনী পাত্র বলেছেন, “দলে সকলকেই স্বাগত।” আর শর্তের বিষয়ে ফাল্গুনীদেবী বলেছেন, “কাঁচরাপাড়ায় কারখানা হবেই। বারাকপুর আসন আমরা এবার দখল করছি। সেটা হয়ে গেলেই কারখানার কাজ দ্রুত সম্পন্ন করতে যা করার তা করব।”

তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ইউপিএ জমানার রেলমন্ত্রী থাকাকালীন ওই কারখানার শিলান্যাস করেছিলেন। কাজ শুরু হলেও তা থমকে যায়। সরকার বদল হয়ে যাওয়ায় ওই কারখানার কাজ আর এগোয়নি বলে দাবি করেছেন বীজপুরের বিধায়ক শুভ্রাংশু। এই বিষয়ে বিজেপি নেত্রী ফাল্গুনী পাত্র বলেছেন, “তৃণমূলনেত্রী ওই প্রকল্প চালু করলেও পরেও তৃণমূলের পক্ষ থেকেই তা নিয়ে বিশেষ উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। সেই কারণেই প্রায় এক দশক পরেও কাঁচরাপড়ায় রেলের কারখানা তৈরি হয়নি।”

শুভ্রাংশুর দ্বিতীয় শর্ত নিয়ে ১০০ শতাংশ সহমত নন ফাল্গুনীদেবী। তিনি বলেছেন, “আমরা চাই কাঁচরাপাড়ার কারখানায় নিয়োগের ক্ষেত্রে বারাকপুরের মানুষদের অগ্রাধিকার দেওয়া হোক। সেই নিয়ে আমরা যা যা করণীয় তা করব।”