স্টাফ রিপোর্টার, বর্ধমান (পূর্ব বর্ধমান) : লোকসভা নির্বাচনে জেলায় কংগ্রেসের ভরাডুবির দায় তাঁর৷ যে ফলাফল হাত শিবিরের হয়েছে, তারপর পদ আঁকড়ে থাকার কোনও অর্থ নেই তাঁর কাছে৷ এমনই দাবি পূর্ব বর্ধমান জেলা কংগ্রেস সভাপতি আভাস ভট্টাচার্যের৷ এই দাবি নিয়েই প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্রের কাছে ইস্তফা পত্র পাঠান তিনি৷

তিনি মনে করেন নতুনরা এগিয়ে আসুক। তিনি কংগ্রেস কর্মী ছিলেন, আছেন এবং থাকবেনও। আভাষবাবু জানিয়েছেন, কংগ্রেসের এই ফল তিনি কিছুতেই মেনে নিতে পারছেন না। কেন সাধারণ মানুষ শতবর্ষের ঐতিহ্যবাহী এই দলকে ব্রাত্য করে দিল তার কারণ পর্যালোচনা করা দরকার। আর পর্যালোচনার পর সেইমতই দলকে সাজানো দরকার।

আরও পড়ুন : মোদীর সাফল্যে বিনে পয়সায় চা বিতরণ চা-ওয়ালা বিশুর

আভাষবাবু জানিয়েছেন, ছাত্রাবস্থা থেকে কংগ্রেস করে আসছেন। ১৯৬২ সাল থেকে একটানা উত্থান পতনের কংগ্রেসের একজন কর্মী হিসাবে কাজ করে এসেছেন। ২০১১ সাল থেকে তিনি দলের জেলা সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি জেলা সভাপতি হবার পর চেষ্টা করেছেন গোটা জেলায় সংগঠনকে চাঙ্গা করতে। গত পঞ্চায়েত নির্বাচনেও জেলা কংগ্রেস সীমিত সামর্থ্যের মধ্যে লড়াই করেছেন।

কিন্তু উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার ফলাফল প্রকাশের পর বর্ধমান দুর্গাপুর লোকসভা আসনের কংগ্রেস প্রার্থী রণজিত মুখোপাধ্যায় জানিয়েছেন, কংগ্রেসের এই হার সত্যিই বিস্ময়কর। কেন মানুষ কংগ্রেসের দিক মুখ ফিরিয়ে নিলেন তার কারণ যাচাই করা দরকার।