বার্সেলোনা: লিসবনের সেই দুঃস্বপ্নের রাত ভুলে মেজাজেই চ্যাম্পিয়ন্স লিগ অভিযান শুরু করল বার্সেলোনা। রোনাল্ড কোম্যানের অধীনে ২০২০-২১ চ্যাম্পিয়ন্স লিগের প্রথম ম্যাচে হাঙ্গেরির ফেরেঙ্কভারোসকে ৫-১ গোলে পর্যুদস্ত করল তারা। ধারে এবং ভারে অনেক এগিয়ে থেকে শুরু করলেও এই ফলাফলে বার্সেলোনার কৃতিত্বকে কোনওভাবেই খাটো করা যাবে না। একইসঙ্গে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের প্রথম ম্যাচে বার্সেলোনার এই জয় স্মরণীয় হয়ে রইল মেসির ব্যক্তিগত রেকর্ডের জন্যেও।

প্রথম ফুটবলার হিসেবে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের টানা ১৬টি মরশুমে গোলের নজির গড়লেন আর্জেন্তাইন ফুটবল মায়েস্ত্রো। মেসি ছাড়াও এদিন কাতালান ক্লাবের হয়ে গোলের খাতায় নাম তুললেন টিন-এজ তারকা আনসু ফাতি, ফিলিপ কুটিনহো, পেদ্রি এবং দেম্বেলে। ২৭ মিনিটে স্পটকিক থেকে মেসির গোলেই এদিন হাঙ্গেরির চ্যাম্পিয়ন দলটির বিরুদ্ধে খাতা খোলে বার্সেলোনা। ৪২ মিনিটে দি ইয়ং’য়ের লব পাস ধরে স্কোরলাইন ২-০ করেন ফাতি।

বিরতির পর ব্যবধান বাড়িয়ে নিতে বেশি সময় নেয়নি বার্সেলোনা। বক্সের মধ্যে ফাতির ব্যাকহিল পাস ধরে জোরালো ভলিতে ব্যবধান ৩-০ করেন ফিলিপ কুটিনহো। যদিও ৬৮ মিনিটে বিপক্ষের এক স্ট্রাইকারকে নিজেদের বক্সে জার্সি টেনে ফেলে দিয়ে বিপদ ডেকে আনেন পিকে। স্প্যানিশ ডিফেন্ডার লাল কার্ড দেখায় দশজনে হয়ে যায় বার্সেলোনা শিবির। একইসঙ্গে পেনাল্টি পায় নু-ক্যাম্পে সফরকারী দল। পেনাল্টি থেকে ফেরেঙ্কভারোস সমতা ফেরালেও তা কখনোই যথেষ্ট ছিল না তাদের জন্য। উলটে শেষদিকে দশজনের বার্সেলোনা আরও দু’গোল চাপিয়ে দেয় হাঙ্গেরির দলটিকে।

৮২ মিনিটে পেদ্রি এবং ৮৯ মিনিটে ওসমানে দেম্বেলের গোলে পাঁচ গোলের বৃত্ত সম্পূর্ণ হয় রোনাল্ড কোম্যানের দলের। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের অন্য ম্যাচে এদিন জুভেন্তাস জিতল ২-০ গোলে। জুভেন্তাসে দ্বিতীয় ইনিংসে তাঁর চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শুরুটা স্মরনীয় রাখলেন আলভারো মোরাতা। দ্বিতীয়ার্ধেই স্প্যানিশ স্ট্রাইকারের জোড়া গোলেই ডায়নামো কিয়েভকে অ্যাওয়ে ম্যাচে ২-০ গোলে হারাল জুভেন্তাস। করোনা আক্রান্ত ক্রিশ্চিয়ানোর রোনাল্ডোর অভাব ঢেকে দিয়ে পিরলোকে কোচ হিসেবে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের অভিষেকে স্মরণীয় জয় এনে দিলেন তাঁর একসময়ের সতীর্থ মোরাতা।

অন্যান্য ম্যাচে ল্যাজিও ঘরের মাঠে ৩-১ গোলে হারিয়েছে জার্মান জায়ান্ট বরুসিয়া ডর্ট্মুন্ডকে। এদিকে স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে চেলসি এবং ইউরোপা লিগ চ্যাম্পিয়ন সেভিয়া ম্যাচ গোলশূন্য শেষ হয়েছে।

জেলবন্দি তথাকথিত অপরাধীদের আলোর জগতে ফিরিয়ে এনে নজির স্থাপন করেছেন। মুখোমুখি নৃত্যশিল্পী অলোকানন্দা রায়।