স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: এক সদ্যজাত কন্যা সন্তান উদ্ধারের ঘটনায় সোমবার গভীর রাতে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়াল উত্তর ২৪ পরগনার ইছাপুর রেল স্টেশন সংলগ্ন রেল কোয়ার্টার এলাকায়। সোমবার গভীর রাতে একটি পাতলা কাপড়ে জড়ানো অবস্থায় ওই সদ্যজাত কন্যা সন্তানকে কেউ রাতের অন্ধকারে ঝোপের ভিতরে ফেলে রেখে চলে যায় বলে অভিযোগ৷

ইছাপুর রেল কোয়ার্টার সংলগ্ন একটি ঝোপের মধ্যে ওই শিশুটির কান্নার শব্দ শুনতে পান এলাকাবাসী। তারাই গিয়ে দেখেন অন্ধকারে ঝোপের মধ্যে পড়ে রয়েছে ওই সদ্যজাত এবং কান্নাকাটি করছে৷ এরপর স্থানীয় বাসিন্দারা ওই সদ্যজাতকে উদ্ধার করে বারাকপুর বিএন বসু মহকুমা হাসাপাতালে ভর্তি করে৷ সদ্যজাত শিশুটিকে উন্নত চিকিৎসা পরিষেবা দিতে শিশুটিকে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এসএনসিইউ বিভাগে ভর্তি করে নেয়৷ আপাতত সেখানেই চিকিৎসকদের পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে ওই সদ্যজাতকে৷ গোটা ঘটনাটি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সংশ্লিষ্ট নোয়াপাড়া থানার পুলিশকে জানিয়েছে৷

বারাকপুর বিএন বসু মহকুমা হাসপাতাল সূত্রের খবর, শিশুটির শারীরিক অবস্থা বর্তমানে স্থিতিশীল। উদ্ধারকারী এলাকাবাসীর অভিযোগ, ‘শুধুমাত্র কন্যা সন্তান জন্ম দেয়ার কারনেই ওই শিশুটিকে এই ভাবে রাস্তায়র পাশে ঝোপের মধ্যে ফেলে দিয়েছিল তার পরিচিত কেউই।’ এই ঘটনায় অভিযুক্তদের কড়া শাস্তির দাবি জানিয়েছেন উদ্ধারকারীরা৷

স্থানীয় এক বাসিন্দা বলেন, ‘ইছাপুর রেল স্টেশন সংলগ্ন এলাকায় অপরিচিত ২০/২১ বছরের এক যুবতীকে সোমবার দিনভর কোলে বাচ্চা নিয়ে ঘোরাফেরা করতে দেখা যায়৷ ওই যুবতীর সঙ্গে একজন বয়স্ক মহিলাও ছিলেন৷ রাতের অন্ধকার নেমে আসতেই ওই যুবতী হয়তো অন্ধকারে ঝোপের মধ্যে তার সদ্যজাতকে ফেলে দিয়ে পালিয়েছে।’ নোয়াপাড়া থানার পুলিশের প্রাথমিক অনুমান বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কের কারনে কোন মহিলা সন্তান জন্ম দেওয়ার পর এই অমানবিক ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারে৷ এই ঘটনার তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছে নোয়াপাড়া থানার পুলিশ৷