প্রতীতি ঘোষ, বারাকপুর: সিপিএমকে তাদের পুরানো পার্টি অফিস ফিরিয়ে দিল তৃণমূল।

উত্তর ২৪ পরগনার বারাকপুর চিড়িয়ামোড়ে সিপিএমের দলীয় কার্যালয় দুষ্কৃতীরা তালা দিয়ে দিয়ে দিয়েছিল। দীর্ঘ ৮ বছর আগে ২০১১ সালে পালা বদলের সময় এমন চাঞ্চল্যকর ঘটনা ঘটে। কিন্তু বুধবার সন্ধ্যায় সেই কার্যালয়ের তালা খুলে পুনরায় সেই কার্যালয় সিপিএমের হাতে ফিরিয়ে দিল তৃণমূল। বারাকপুর পুরসভার পুরপ্রধান উত্তম দাস সিপিএমের দলীয় কার্যালয়ের তালা খুলে সেই তালার চাবি তুলে দেন সিপিএমের প্রাক্তন সাংসদ তড়িৎ বরণ তোপদারের হাতে। তৃণমূলের এই রাজনৈতিক সৌজন্যতায় খুশী ব্যারাকপুরের সিপিএম নেতা কর্মীরা।

বারাকপুর পুরসভার পুরপ্রধান উত্তম দাস বলেন, কেউ বা কারা এই পার্টি অফিসে তালা মেরেছিল। আমরা আজ তালা খুলে দিলাম। আমাদের কোন কর্মী এই পার্টি অফিসে এসে বসেনি। ওদের পার্টি অফিস এবার থেকে ওরা ব্যবহার করবে। সিপিএম নেতা প্রাক্তন সাংসদ তড়িৎ বরণ তোপদার বলেন, এরকম আরো কিছু পার্টি অফিস বন্ধ রয়েছে। সেগুলিও আশা করা যায় খুব তাড়াতাড়ি খুলে যাবে। এদিকে তৃণমূলের এই রাজনৈতিক সৌজন্যতা মানতে নারাজ বিজেপি।

বিজেপির বক্তব্য, রাজ্যে তথা বারাকপুরে বিজেপির উত্থান সিপিএম ও তৃণমূলকে কাছাকাছি আনছে। এটা সিপিএম ও তৃণমূলের অশুভ জোট। যদিও সিপিএম ও তৃণমূলের অশুভ জোট বা রাজনৈতিক ভাবে কাছাকাছি আসা, এরকম কোন বিষয়ই মানতে নারাজ উত্তম দাস বা তড়িৎ বরণ তোপদার । আরও বেশ কিছু দলীয় কার্যালয় সিপিএমকে ফিরিয়ে দেওয়া হবে বলে আশ্বাস দিয়েছে বারাকপুরের তৃণমূল নেতৃত্ব।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও