স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সভায় এবার তাঁরই দলের নেতা কর্মীদের প্রবেশাধিকারে লাগাম টানা শুরু হল৷ আমন্ত্রণ পত্র ছাড়া এবার দিদির বৈঠকে ঢুকতে পারবেনা তৃণমূলের কোনও নেতা৷

২ মার্চ নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে পুর নির্বাচন নিয়ে বৈঠক ডেকেছেন তৃণমূলনেত্রী। সেই বৈঠকের জন্য বিশেষ কার্ড তৈরি করা হয়েছে৷ ওই কার্ডে দেওয়া থাকবে নির্দিষ্ট ‘বার-কোড’। সেটাই হবে সভায় ঢোকার ছাড়পত্র। আর এই পুরো ব্যবস্থার নেপথ্যে রয়েছেন তৃণমূলের রাজনৈতিক পরামর্শদাতা প্রশান্ত কিশোর ৷

কার্ডে লেখা রয়েছে, ১. অনুষ্ঠানের দিন এই পাসটি আনা বাধ্যতামূলক, অনুষ্ঠানের পাস না থাকলে সভাগৃহে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে না৷
২. অনুষ্ঠানের জন্য রেজিস্ট্রেশন বা প্রবেশ সকাল ১০ টায় শুরু হবে৷ পাস হোল্ডারদের সকাল ৯.৪৫ মিনিটের মধ্যে সভাগৃহে উপস্থিত হওয়ার জন্য অনুরোধ করা হচ্ছে৷
৩. কেবলমাত্র উল্লিখিত গেট, সিঁড়ি এবং নির্ধারিত বসার জায়গায় পাস হোল্ডারকে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে৷ যখন প্রয়োজন তখন অনুষ্ঠানের পাস দেখানো আবশ্যক৷
৪. পাসের ডানদিকের অংশটি দিয়ে আপনার রেডিস্ট্রেশন কিট এবং খাবার কুপন সংগ্রহ করুন৷

এই ধরণের কার্ড চালু করার কারণ কি? সূত্রের খবর, তৃণমূল কংগ্রেসের অনেক বৈঠকেই বহু নেতা-কর্মী বিনা আমন্ত্রণে চলে আসেন। যে স্তরের সাংগঠনিক নেতাদের ডাকা হয় তার বাইরেও অনেকে চলে আসেন। আবার কোনও কোনও নেতা অনুগামীদের নিয়ে বৈঠকে ঢোকেন। কিন্তু এবার তা হতে দিতে চায় না তৃণমূল কংগ্রেস। আর তার জন্যই তৈরি হয়েছে ‘বার-কোড’ দেওয়া আমন্ত্রণ পত্র। সেই কার্ড দেখিয়ে কোন স্তরের নেতা নেতাজি ইন্ডোরের কোন গেট দিয়ে ঢুকতে পারবেন সেটাও ঠিক করা থাকবে।

নতুন এই ব্যবস্থার কারণ বোঝাতে যুব তৃণমূল সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের একটি ভিডিয়ো বার্তাও প্রচার করা হয়েছে। তাতে অভিষেক জানিয়েছেন, শৃঙ্খলা ও দায়বদ্ধতা নিশ্চিত করতেই ‘বার কোড’ সহ কার্ডের ব্যবস্থা করা হয়েছে। পুর নির্বাচনের আগে নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামের দলের পুরপ্রতিনিধি ও সাংগঠনিক পদাধিকারীদের এই বৈঠকে ডাকা হয়েছে। সেই বৈঠকের প্রস্তুতি হিসেবেই জেলায় জেলায় এই কার্ড বিলি শুরু করেছে প্রশান্তের সংস্থা। সেই কার্ডেই সংশ্লিষ্ট নেতার নাম, পদের সঙ্গে লেখা রয়েছে তিনি কোন গেট দিয়ে স্টেডিয়ামে ঢুকবেন এবং কোথায় বসবেন। এক জনের কার্ডে অন্য কেউ যেতে পারবেন না। কার্ডে ‘বার কোড’ দিয়ে সংশ্লিষ্ট নেতা-কর্মীদের উপস্থিতি ও নিরপত্তার বিষয়টি যেমন নিশ্চিত করা হয়েছে। ইতিমধ্যেই জেলায় জেলায় সেই কার্ড বিলি শুরু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।