ফাইল ছবি

বাঁকুড়াঃ প্রকাশ্য জনসভায় দলের জেলা সভাপতি শ্যামল সাঁতরার নাম করে ‘বিতর্কিত’ মন্তব্য করায় বাঁকুড়া জেলা যুব তৃণমূলের সহ সভাপতি বিদ্যুৎ দাসকে ‘শোকজ’ করলো শাসক দল। চলতি মাসের ২৮ তারিখের মধ্যে ওই যুব তৃণমূলের সহ সভাপতিকে শোকজের জবাব দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে একটি সূত্র মারফৎ পাওয়া খবরে জানা গিয়েছে।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি জেলার জঙ্গল মহলের রানীবাঁধে ব্লক মহিলা যুব তৃণমূলের ডাকে কেন্দ্রীয় সরকারের কৃষি বিল, জাতীয় সম্পদ বেসরকারীকরণ, মূল্যবৃদ্ধি ও উত্তর প্রদেশের হাথরাসের ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে মিছিল শেষে এক সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে জেলা যুব তৃণমূল সহ সভাপতি বিদ্যুৎ দাস দলের জেলা সভাপতি শ্যামল সাঁতরার নাম করে তাকে এক হাত নেন।

তিনি বলেন, শ্যামল বাবু তাদের এই মঞ্চকে ‘অবৈধ’ ঘোষণা করলেও রাজ্য নেতৃত্বের অনুমতি নিয়ে তিনি মিছিল ও সভা করছেন। একই সঙ্গে আরো বলেন, ‘যারা দলে থেকে দলবাজি-লবি বাজি করছেন তারা জেনে রাখুন দল ক্ষমতা থেকে সরে গেলে ঐ চেয়ার থাকবেনা’।

জেলা যুব সহ সভাপতির মতো গুরুত্বপূর্ণ পদে থেকে দলের জেলা সভাপতির নাম করে এই ধরণের মন্তব্যের জেরে শাসক শিবিরে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায়। এমনকি চরম অস্বস্তিতে পড়েন শীর্ষ নেতৃত্ব। এরপরেই তড়িঘড়ি ঐ যুব নেতাকে শোকজের সিদ্ধান্ত জেলা তৃণমূল নেয় বলে মনে করা হচ্ছে।

এদিন বাঁকুড়া জেলা তৃণমূলের চেয়ারম্যান শুভাশীষ বটব্যাল যুব সহ সভাপতির এক প্রকার পাশে দাঁড়িয়ে বলেন, ‘বয়সটা কম, বোঝেনি। আচমকা ইমোনশাল হয়ে বলে ফেলেছে’।

এর পরেই তিনি বলেন, দল এই ধরণের বিষয় বরদাস্ত করবেনা। ভবিষ্যতে দল ও বিভিন্ন গণ সংগঠন গুলির কোন নেতৃত্ব যাতে এই ধরণের প্রকাশ্যে কাদা ছোঁড়াছুঁড়ি করতে না পারেন সে ব্যাপারে দলের তরফে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও তিনি জানান।

এবিষয়ে ‘বিতর্কিত’ জেলা যুব তৃণমূল সহ সভাপতি বিদ্যুৎ দাসকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, আপনার কাছেই শুনছি। আমার কাছে শোকজের কোন চিঠি বা খবর আসেনি। চিঠি এলে অবশ্যই তার উত্তর তিনি দেবেন বলে জানান।

জেলা বিজেপির সহ সভাপতি শ্যামল সরকার (বেনু) রাজ্য সভার তৃণমূলের প্রাক্তন সাংসদ কুনাল ঘোষের প্রসঙ্গ টেনে বলেন, আজ শোকজ করেছে। দু’দিন পরেই ঐ বিদ্যুৎ দাসকে আবার দলে টেনে নেবে। তৃণমূলে এই সব যা চলছে সব ‘নাটক’, মানুষ আর এসব পছন্দ করছেননা। যারা ‘চিহ্নিত’ হবার তারা মানুষের কাছে চিহ্নিত হয়ে গেছেন বলেও এই বিজেপি নেতা দাবি করেন।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।