স্টাফ রিপোর্টার, বাঁকুড়া: ‘পুলিশকর্মীদের কোনও জিনিসপত্র বিক্রি করবেন না’, এমনই অদ্ভুত নিদান বাঁকুড়ায় তৃণমূল সমর্থিত শ্রমিক সংগঠনের। রীতিমতো মাইক প্রচার করে এমন নিদান বাঁকুড়ার বড়জোড়ার গ্রামে। ইতিমধ্যেই সোশাল মিডিয়ায় এমনই একটি ভিডিও রীতিমতো ভাইরাল হয়েছে।

একটি ভিডিও ঘিরে তুমুল বিতর্ক বাঁকুড়ায়। যদিও ভাইরাল হওয়া ওই ভিডিও-র সত্যতা যাচাই করেনি কলকাতা২৪×৭।ভাইরাল হওয়া ওই ভিডিওয় স্পষ্ট শোনা যাচ্ছে, ‘ব্যাটিলিয়নের পুলিশকর্মীদের কোনও জিনিসপত্র বিক্রয় করিবেন না। মাল বিক্রয় করিলে গ্রামে অশান্তি তৈরি হবে।’ ওই ব্যাটেলিয়ন থেকেই গ্রামে করোনা সংক্রমণ ঘটেছে।’

প্রসঙ্গত, বাঁকুড়ার বড়জোড়ায় রাজ্য পুলিশের ১৩ নম্বর ব্যাটেলিয়নে এখনও পর্যন্ত ৪০ জনের বেশী কর্মী করোনা আক্রান্ত। কাকতালীয়ভাবে তারপরে বড়জোড়া গ্রাম-সহ পুরো ব্লক এলাকায় বেশ কিছু করোনা আক্রান্তের খবর মিলেছে। এদিকে, শাসক দলের শ্রমিক সংগঠনের এই মাইক প্রচার নিয়ে তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে বড়জোড়া সিপিএম।

বড়জোড়ার সিপিএম নেতা সুজয় চৌধুরী বলেন, ‘এটা ঠিক রাজ্য পুলিশের ১৩ নম্বর ব্যাটিলিয়নে বেশ কিছু কর্মী করোনা আক্রান্ত। তবে শাসকদল যেভাবে তাঁদের সামাজিক বয়কটের কথা বলছে তা নিন্দনীয়। সিপিএম এই ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ ও ধিক্কার জানাচ্ছে।’

অন্যদিকে, বিজেপির বিষ্ণুপুর সাংগঠনিক জেলা সভাপতি হরকালি প্রতিহার বলেন, ‘পুলিশকে সামনে রেখে একসময় তৃণমূল ভোট লুঠ থেকে শুরু করে বিজেপি কর্মীদের উপর অত্যাচার, মিথ্যা মামলা দিয়েছে। তাঁদেরই এবার বয়কটের কথা বলা হচ্ছে। এই ঘটনা অমানবিক। পুলিশ কর্মীদের পাশে আছে বিজেপি।’

যদিও শাসকদল সমর্থিত ওই শ্রমিক সংগঠনের নিদান ঘিরে তৃণমূলের বাঁকুড়া জেলা সভাপতি ও রাজ্যের মন্ত্রী শ্যামল সাঁতরাকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘এই ধরণের কোনও খবর জানা নেই। তবে ঘটনা সত্যি হলে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেব।’

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও