তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: ভোটের আগে প্রচারেও অভিনবত্ব গেরুয়া শিবিরের৷ চলছে গোমাতার পুজো৷ উলটো দিকে সাবেকি প্রথায় প্রচারে ঝড় তুলছেন তৃণমূলের সুব্রত মুখোপাধ্যায়৷

আরও পড়ুন: ৫০টি শহরে মেট্রো, রেলট্র্যাকের বৈদ্যুতিকরণের ঘোষণা বিজেপির ইস্তেহারে

বালাকোট বা আর্থিক সংস্কার যতই হোক৷ প্রচারে এসবের পাশে ঠাঁই পাচ্ছেন ‘গো-মাতা’ও৷ বাঁকুড়া লোকসভা কেন্দ্রের গেরুয়া প্রার্থী ডাঃ সুভাষ সরকার প্রচারে বেড়িয়ে সোমবার গো মাতার পুজো করেন৷ গোরুর গলায় গাঁদা ফুলের মালা ও সিঁদুর লাগিয়ে পুজো করেন তিনি৷ এতেই কী আর শেষ! চলে গরুকে খাওয়ানোর পালা৷

চার পেয়ী পশু হতে পারে৷ কিন্তু হিন্দু ধর্মে তাকেই তো ‘মা’ বলে পুজো করা হয়৷ প্রচারে বেরিয়ে মায়ের সঙ্গে ভক্তের কথা হবে না তা আবার হয় নাকি? গো-মাতার পুজো চলাকালীনই এক বিজেপি মহিলা কর্মীকে ‘আমাকে দেখবেন মা’ বলে কাতর পার্থনা করতেও শোনা যায়৷

আরও পড়ুন: রাহুল গান্ধীর বিরুদ্ধে প্রার্থী হচ্ছেন রাহুল গান্ধী

কিন্তু কেন হঠাৎ প্রচারে গো-মাতা? সাবধানী ডাক্তারবাবু দিলেন স্বাস্থ্য ভালো রাখার টিপস৷ বলেন, ‘‘এক জন চিকিৎসক হিসেবে গ্রামের মানুষকে বলি স্বাস্থ্য সুরক্ষায় বেশী বেশী করে দুধ খেতে হবে। হরলিক্স খেলে হবেনা৷’’ সঙ্গে যুক্ত করেন, ‘‘আমরা চাই গো-সম্পদ পাচার বন্ধ হোক, দেশে গো-সম্পদ বৃদ্ধি পাক যাতে গ্রামের দরিদ্র সাধারণ মানুষ বেশী করে দুধ পান করতে পারেন৷’’ তাঁর মতে মায়ের দুধের পরেই গোরুর দুধ সব থেকে বেশী উপকারি৷

অন্যদিকে, সপ্তাহের প্রথম কাজের দিনে ওই কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী ছাতনা ব্লক এলাকার বিভিন্ন গ্রামে হুড খোলা গাড়িতে চেপে নির্বাচনী প্রচার চালান। প্রচারের ফাঁকেই তৃণমূল প্রার্থী বলেন, ‘‘অভূতপূর্ব সাড়া পাচ্ছি। মানুষের স্বতঃস্ফূর্ততা দেখে মনে হচ্ছিল আজকের মিছিল যেন আগাম বিজয় উৎসবে পরিনত হয়েছে।’’

আরও পড়ুন: আদবানী-যোশীর সঙ্গে দেখা করবেন অমিত শাহ

বিজেপি প্রার্থী ডাঃ সুভাষ সরকারের ‘গো মাতার পুজো’ প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তৃণমূল প্রার্থী সুব্রত মুখোপাধ্যায় বলেন ‘‘ইতিমধ্যেই ভোটাররা সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন৷’

আরও পড়ুন: স্বস্তিতে অভিষেক জায়া রুজিরা, আদালতে প্রশ্নে’র মুখে শুল্ক দফতর

আগামী ১২ই মে বাঁকুড়া লোকসভা আসনে ভোট৷ প্রচারের অভিনবত্ব, নাকি সাবেকি ধারার প্রচারে ভরসা রাখেন মানুষ৷ তা জানতেই পদ্ম ও জোড়াফুল শিবিরের নজরে ইভিএম৷