তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: কন্যাশ্রীর ছাত্রীদের নিয়ে ডেঙ্গু ও মশা বাহিত রোগ সচেতনতায় পথে নামলেন বাঁকুড়ার জেলাশাসক ডাঃ উমাশঙ্কর এস। মঙ্গলবার পুরপ্রধান মহাপ্রসাদ সেনগুপ্ত, দায়িত্ব প্রাপ্ত পুরসভার আধিকারিক ও বঙ্গ বিদ্যালয়ের কন্যাশ্রীদের নিয়ে শহরের মাচানতলা সংলগ্ন ইদগামহল্লা এলাকায় ডেঙ্গু নিয়ে প্রচার চালান। কথা বললেন স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে।

ডেঙ্গু বাহিত মশার আঁতুড় ঘর জমা জল৷ তাই এলাকায় যাতে জল জমতে না পারে সেই বিষয়ে সাধারণ মানুষকে বোঝানো হয়। বাঁকুড়া শহরকে ডেঙ্গু মুক্ত করতে জেলাশাসকের নেতৃত্বে ধারাবাহিক এই প্রচারকে শহরবাসী স্বাগত জানিয়েছেন।

জেলাশাসক ডাঃ উমাশঙ্কর এস জানান, বাঁকুড়া পুরসভা এলাকায় ধারাবাহিকভাবে ডেঙ্গু সচেতনতা বিষয় প্রচার ও পর্যবেক্ষণ চালানো হচ্ছে। ইতিমধ্যে বেশ কয়েকজনকে জরিমানার নোটিশ দেওয়া হয়েছিল। তারা জরিমানা জমা দিয়েছেন। পুকুর সংস্কারের কাজও চলছে। এর পরেও কেউ যদি পুকুর সংস্কার না করেন তাহলে সেই পুকুর দখল করা হবে৷ তারপর সেই পুকুরে প্রশাসনের তরফে সংস্কার করে মৎস্য দফতর মাছ চাষ করবে।

তিনি আরও জানান, মঙ্গলবার বঙ্গ বিদ্যালয়ের কন্যাশ্রীদের নিয়ে ডেঙ্গু সচেতনতামূলক প্রচার চালানো হল। জেলার সব স্কুলের কন্যাশ্রীদের নিয়ে এই ধরণের সচেতনতামূলক প্রচার ধারাবাহিকভাবে চালানো হবে বলে তিনি জানান।

জেলাশাসকের এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন বাঁকুড়া পুরপ্রধান মহাপ্রসাদ সেনগুপ্ত। তিনি জানান, আমরা অনুপ্রাণিত। জেলা শহরের সব কটি স্কুলের কন্যাশ্রীদের নিয়ে পুরসভা এলাকার ২৪ টি ওয়ার্ডেই এই প্রচার কর্মসূচী হবে৷

শহরের বঙ্গ বিদ্যালয়ের কন্যাশ্রীরাও খুশি জেলাশাসকের নেতৃত্বে এই ধরণের প্রচার অনুষ্ঠানে যোগ দিতে পেরে। কন্যাশ্রী নিকিতা দত্ত জানায়, পড়াশোনার পাশাপাশি এই ধরণের সচেতনতামূলক প্রচারানুষ্ঠানে যোগ দিতে পেরে ভালো লাগলো। এবার এই ধরণের প্রচার তারা নিজেদের এলাকাতেও করবে বলে জানায়।