তিমিরকান্তি পতি (বাঁকুড়া); পিছিয়ে নেই জেলার প্রত্যন্ত গ্রামের মহিলারাও। বাঁকুড়ার কোতুলপুরের বড় পুকুর গ্রামের সম্পূর্ণ মহিলা পরিচালিত পুজো এই পুজোর মূল স্লোগান ‘ঢাকের তালে ধুনুচি নাচ, এটাই প্রাচীণ রীতি। মনের ফ্রেমে বাঁধিয়ে রেখো দুর্গা পুজার স্মৃতি।

পুজো কমিটি সূত্রে জানানো হয়েছে, কয়েক বছর আগে গ্রামের কয়েক জন উৎসাহী যুবকের উদ্যোগে এই পুজো শুরু হলেও পরবর্ত্তী সময়ে মহিলারা এই দায়িত্ব নিজেদের কাঁধে তুলে নেন। চাঁদা সংগ্রহ থেকে পুজোর আয়োজন সব কিছুই সামলাচ্ছেন গ্রামের প্রমিলাবাহিনী। প্রতিদিন সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের পাশাপাশি শুক্রবার ষষ্ঠীতে রক্তদান শিবিরের আয়োজন করা হয়েছিল।

ইতিমধ্যে সম্পূর্ণ মহিলা পরিচালিত বড়পুকুর গ্রামের এই পুজো মণ্ডপ ঘুরে গেছেন রাজ্যের মন্ত্রী শ্যামল সাঁতরা, কোতুলপুরের ওসি রাজীব পাল সহ বহু বিশিষ্ট মানুষ। মন্ত্রী শ্যামল সাঁতরা যথেষ্ট খুশি, তিনি বলেন, রাজ্যের তরফে সম্পূর্ণ মহিলা পরিচালিত পুজো কমিটি গুলিকে অতিরিক্ত পাঁচ হাজার টাকা দেওয়া হচ্ছে। বড়পুকুর সার্বজনীন পুজো কমিটিও ৩০ হাজার টাকা অনুদান পেয়েছে বলে তিনি জানান।

পুজা কমিটির সভাপতি মীতা ঘোষ ৩০ হাজার টাকা সরকারী অনুদান পাওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, কাপড় ও থার্মোকল দিয়ে মণ্ডপ সজ্জা করা হয়েছে। প্রথমে গ্রামের ছেলেরা এই পুজো শুরু করলেও পরবর্ত্তী সময়ে মহিলারা পুরো পুজো পরিচালনার দায়িত্ব নেন বলে তিনি জানান।