নয়াদিল্লি: জেট এয়ারওয়েজ-এর নিয়ে আর পুনরুজ্জীবনের পথে হাঁটা হচ্ছে না ৷ কারণ এই বিমান সংস্থার ঋণদাতারা সোমবার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, এই সংস্থাটিকে জাতীয় কোম্পানি ল ট্রাইব্রুনাল-এ পাঠান হবে দেউলিয়া প্রক্রিয়ার জন্য৷

বিবৃতিতে জানান হয়েছে,লগ্নিকারীদের কাছ থেকে শর্তসাপেক্ষে আগ্রহ পাচ্ছিল ঋণদাতারা ৷ লন্ডন ভিত্তিক ব্যবসায়ী গোষ্ঠী হিন্দুজারা ১১জুন সিদ্ধান্ত নেয় জেট এয়ারওয়েজের অংশিদারিত্ব কেনার ক্ষেত্রে আলোচনা বন্ধ করার৷ আবার আবু ধাবীর ইতিহাদ এয়ারওয়েজ যে পরিকল্পনা করছিল এই বিমান সংস্থায় অর্থ ঢালার তাও আটকে গিয়েছে ৷

জেট এয়ারএয়েজের বিরুদ্ধে দুই পাওনাদার শামাম হুইলস প্রাইভেট লিমিটেড এবং গাগ্গর এন্টারপ্রাইজ প্রাইভেট লিমিটেড আলাদা আলাদা ভাবে জাতীয় কোম্পানি ল ট্রাইব্রুনাল-এ দেউলিয়া প্রক্রিয়ার জন্য আবেদন করেছিল ৷ এবার ঋণদাতারাও তাতে সামিল হল৷

কোম্পানি বিষয়ক মন্ত্রকের ওয়েবসাইট অনুসারে শামাম হুইলস হল মুম্বইয়ের মোটর ডিলার এবং গাগ্গর এন্টারপ্রাইজ হল আহমেদাবাদের মিনারেল ওয়াটার উৎপাদনকারী সংস্থা৷

জাতীয় কোম্পানি ল ট্রাইব্রুনাল-এ যাওয়ার ফলে ঋণদাতারা তাদের পাওনা ৮৪০০ কোটি টাকার একটা অংশ মাত্র পাবে৷ বকেয়া বেতন, ভেন্ডারদের পাওনা সহ এই বিমান সংস্থার মোট দায় ১৫,০০০কোটি টাকা৷

জেট এয়ারওয়েজের ঋণদাতারা যাদের নেতৃত্বে ছিল এসবিআই চেষ্টা করছিল জেটএয়ারওয়েজ-এর সংকট জাতীয় কোম্পানি ল ট্রাইব্রুনাল-এর বাইরে কাটাতে ৷ অর্থের অভাবে জেটওয়ারএয়েজ ১৭ এপ্রিল থেকে সব রকম কার্যকলার বন্ধ করে দেয়৷