স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: দুর্নীতির অভিযোগ উঠল খোদ বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংয়ের ভাইপোর বিরুদ্ধে। ব্যাংক দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে সাংসদের ভাইপো তথা ব্যবসায়ী সঞ্জিত সিং’য়ের বিরুদ্ধে। আর এই অভিযোগের ভিত্তিতে, শনিবার তাঁর বাড়িতে হানা দেয় ভাটপাড়া থানার পুলিশ। এদিন সন্ধ্যায় ভাটপাড়া থানার পুলিশ সঞ্জিত সিংয়ের মেঘনা মোড়ের বাড়িতে তল্লাশি চালায় বলে জানা গিয়েছে।

সঞ্জিত সিংয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ, ভাটপাড়া কো-অপারেটিভ ব্যাংকের দুর্নীতির সঙ্গে তার যোগ রয়েছে। জানা গেছে, সঞ্জিত সিংয়ের স্ত্রী নিতু সিং ওই কো-অপারেটিভ ব্যাংক থেকে কয়েক বছর আগে মোটা টাকা ঋণ নিয়েছিলেন। সেই ঋণের টাকার বিষয়ে জানতেই সঞ্জিতের বাড়িতে শনিবার পুলিশ তল্লাশি চালায়। এদিকে এই ঘটনা প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রীকে চ্যালেঞ্জ করে বসেন।

এদিন তিনি বলেন, “২০২১ সালে মুখ্যমন্ত্রী থাকবেন না মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ভবানীপুর কেন্দ্র থেকে উনি পরাজিত হবেন। আমি আজ ভবানীপুরে যেহেতু সিএএ’র সমর্থনে মিছিল করেছি, তাই আজকে বিকেলে শত্রুতা করে আমার ভাইপোর বাড়িতে পুলিশ পাঠিয়েছিল।”

যদিও ওই বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে পুলিশ তেমন কিছু উদ্ধার করতে পারেনি বলে জানা গিয়েছে। যখন ওই বাড়িতে ভাটপাড়া থানার পুলিশ তল্লাশি অভিযান চালায়, তখন ওই বাড়িতে সঞ্জীতের বৃদ্ধা মা কলাবতী সিং ছিলেন। পুলিশ তাকেও জিজ্ঞাসাবাদ করেছে।
কলাবতী সিং সাংবাদিকদের বলেন, “আমার ছেলে এখন এখানে থাকে না। ও কোথায় আছে আমি জানি না। আমাকে বলে যায়নি। পুলিশ এসে আমাকে হুমকি দিচ্ছিল। আমি বয়স্ক মানুষ, মানসিক অত্যাচার সহ্য করতে পারি না।”

এদিকে এই ঘটনা প্রসঙ্গে বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং নিজের প্রতিক্রিয়ায় বলেন, “আমি আজকে সিএএ’র সমর্থনে কলকাতার ভবানীপুরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের গড়ে মিছিল করেছি। ওখানে তৃণমূলের বিরুদ্ধে ব্যাপক সাড়া রয়েছে। যেহেতু, সকালে আমি ওখানে মিছিলে হেঁটেছি, তাই সন্ধ্যায় আমার ভাইপোর বাড়িতে পুলিশ পাঠিয়ে দিয়েছে। ওরা এখন আমার পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে দুর্নীতি খুঁজছে। যে ব্যাংক দুর্নীতির তদন্তের কথা বলা হচ্ছে, সেখানে কোনও দুর্নীতি নেই। কোনও একসময় ওই ব্যাংক থেকে ও ঋণ নিয়ে তা পরিশোধ করে দিয়েছে।”

তিনি আরও বলেন, ”ঋণের টাকা পরিশোধ করার পর এখন দুর্নীতির কি আছে ? তবে যতই আমার বিরুদ্ধে পুলিশ পাঠিয়ে আমার পরিবারের সদস্যদের হেনস্থা করুক না কেন, আমি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চ্যালেঞ্জ করছি, যেরকম মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য পরাজিত হয়েছিলেন, সেরকমই ওই ভবানীপুরে ও মুখ্যমন্ত্রী ২০২১ সালের ভোটে পরাজিত হবেন। উনি ২০২১ সালে ক্ষমতা হারাবেন।”