কলকাতা: এবার করোনা আক্রান্ত রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের এক আধিকারিক৷ তাড়দায় ওই আধিকারিকের করোনা পজিটিভ৷ ভর্তি বাইপাসের ধারে একটি বেসরকারি হাসপাতালে৷ খতিয়ে দেখা হচ্ছে তার সংস্পর্শে কে কে এসেছিল৷

এর আগে শহরে এক ব্যাংক আধিকারিক করোনা আক্রান্ত হয়েছিল৷ তার সহকর্মীদের পাঠানো হয় কোয়ারেন্টাইনে৷ জীবাণুমুক্ত করা হয় ব্যাংকের ওই শাখাটি৷

সূত্রের খবর, আক্রান্ত ব্যাংক আধিকারিক এসবিআই-এ কর্মরত৷ তার করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে৷ এরপরই বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল ওই ব্যাংকের প্রমথেশ বড়ুয়া রোড শাখা৷

করোনা আক্রান্ত হন স্টেট ব্যাংকের কলকাতার এক কর্মী৷ তারপরই অফিসের একাংশ বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল৷ এবং পুরো অফিস স্যানিটাইজ করা হয়৷ কলকাতার লোকাল হেড অফিসের একটি বিভাগে কাজ করতেন ওই ব্যক্তি। সেই সময় ৮-১০ দিন ধরে অফিসে আসছিলেন না তিনি।

এরপরই জানা যায় মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত ওই কর্মী। ওই কর্মী হেড অফিসের ই-উইং-এ লায়াবিলিটি সেন্ট্রালাইজড প্রসেসিং সেন্টারে কাজ করতেন। মাস খানেক আগে এক ব্যাংক কর্মীর মা করোনা সংক্রমণ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন৷ সেটা জানতে পেরে গোটা ব্যাংক শাটডাউন করে দেয় কর্তৃপক্ষ। ঘটনাটি ঘটেছিল ইউকো ব্যাংকের ভবানীপুরের লালা লাজপত রায় সরণি শাখায়।

জানা গিয়েছিল, খবরটি সংশ্লিষ্ট ব্যাংক কর্তৃপক্ষের কাছে পৌঁছতেই তাঁরা যোগাযোগ করেন স্বাস্থ্য ভবনে। প্রশাসনিক পর্যায়ে কথাবার্তার পর ব্যাংক কর্তৃপক্ষ সেই সময় ব্রাঞ্চ বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন৷ সংশ্লিষ্ট আধিকারিক এবং তাঁর পরিবারকে পাঠানো হয়েছিল কোয়ারেন্টাইনে৷

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ