প্রতীকী ছবি

নয়াদিল্লি: ব্যাংক অথবা আর্থিক প্রতিষ্ঠানের দেওয়া ঋণের টাকা যাতে ফেরত পাওয়ার ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পায় সেদিকে নজর দিতে এবার দেউলিয়া বিধিতে বেশ কিছু সংশোধনে অনুমোদন দিল কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা। এক্ষেত্রে ঋণের টাকা ফেরতের বিষয়ে অগ্রাধিকার দেওয়ার পাশাপাশি সংস্থা পুনরুজ্জীবন প্রক্রিয়ার জন্য দু’মাস সময় বাড়িয়ে ৩৩০ দিন করা হয়েছে । তবে যাবতীয় আইনি প্রক্রিয়া শেষ করতে হবে নতুন সময়সীমার মধ্যেই।

মন্ত্রিসভার এহেন সিদ্ধান্তের পর শিল্প ও বাণিজ্যমন্ত্রী পীযূষ গয়ালের দাবি, এই নিয়মের এই পরিবর্তনের ফলে অনেক বেশি স্বচ্ছতা আসবে। তাছাড়া এই সংক্রান্ত যে সব আইনি প্রক্রিয়া চলছে, সেগুলির ক্ষেত্রেও তা কার্যকর হবে। মন্ত্রিসভা কোম্পানি আইনের ৪৩টি প্রস্তাবিত সংশোধনীতে অনুমতি দিয়েছে ।

পড়ুন: দিনে মাত্র ১১৫ টাকা দিয়ে হাতেনাতে পান ২৬ লক্ষ টাকা, কীভাবে…

প্রসঙ্গত, এনসিএলটিতে যাওয়া এসার স্টিল কিনতে ৪২,০০০ কোটি টাকার দরপত্র দেয় আর্সেলর মিত্তল। যা দিয়ে ঋণদাতা ও কর্মীদের টাকা মেটানোর কথা। কিন্তু এতেই ক্ষুব্ধ স্টেট ব্যাংক, অ্যাক্সিস ব্যাংক মতো ঋণদাতা সংস্থাগুলি। কারণ যেখানে এসার স্টিলের ধারের মোট অংক রয়েছে ৪৯,৪৭৩ কোটি টাকা। তাছাড়া ঠিক হয়ে, সংস্থা বেচে পাওয়া ৪২,০০০ কোটি টাকার মাত্র ৬০.৭% পাবে ঋণদাতা সংস্থাগুলি। ফলে ধার দেওয়া অর্থের মোটা অংশই ছেড়ে দিতে হচ্ছে বলে তাদের ক্ষোভের যুক্তি রয়েছে৷

তাছাড়া এই ধরনের দেইলিয়া প্রক্রিয়ার সময় দেখা গিয়েছে, ওই শিল্প গোষ্ঠীর অন্য সংস্থা যারা ধার দিয়েছে , টাকা ফেরত পাওয়ার ক্ষেত্রে তারাও ব্যাংকের মতো সুবিধা পাচ্ছে৷ এই পরিস্থতিতে ঋণের টাকা আদায় ঠিক মতো না হওয়ায় ক্ষতি হচ্ছিল ব্যাংক এবং আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলির। ফলে এই পরিস্থিতি বিবেচনা করে বকেয়া ফেরতের ক্ষেত্রে কর্মীদের পাশাপাশি ব্যাংকেও অগ্রাধিকারের দাবি উঠেছিল৷