কলকাতা: নাগরিকত্ব আইনকে কেন্দ্র করে উত্তেজিত গোটা দেশ। একের পর এক হিংসাত্মক ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছেন অনেকে পাশাপাশি আতংক এমন ছড়িয়েছে যে দেশের মানুষ থেকে অন্য দেশের মানুষ অনেকেই এই দেশে থাকা যাবে কই না তা নিয়ে চিন্তাগ্রস্থ। এই পরিস্থিতিতেই এক বাংলাদেশি ছাত্রীকে ভারত ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক, এমনটাই জানা গিয়েছে।

২০ বছর বয়সী বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতকস্তরের ছাত্রী আফসারা অনিকা মিম’কে সরকার বিরোধি কার্যকলাপে যুক্ত থাকার অভিযোগে ‘ভারত ছাড়ো নোটিশ’ দেওয়া হয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের বিদেশীদের আঞ্চলিক রেজিস্ট্রেশনের কলকাতা অফিস তরফে ফেব্রুয়ারির ১৪ তারিখে ইস্যু হওয়া একটি চিঠি তাঁকে বুধবার দেওয়া হয়েছে।

জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার কলকাতার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের বিদেশীদের আঞ্চলিক রেজিস্ট্রেশন অফিসে দেখা করতে গিয়েছেন তবে তিনি ফোনে উপলব্ধ ছিলেন না বলেও জানা যায়। তাঁর কাছের বন্ধুরা জানিয়েছেন, আফসারা ভীষণ ভীত এবং কথা বলতে ভয় পাচ্ছে।

ডিসেম্বর মাসে, আফসারা অনিকা মিম শান্তিনিকেতনে নাগরিকত্ব আইনের বিরোধিতায় কিছু ছবি পোস্ট করেছিলেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। সেই ছবির পরিপ্রেক্ষিতেই তাঁকে শুধুমাত্র কটাক্ষ নয় পাশাপাশি তাঁকে ‘বাংলাদেশের সন্ত্রাস’ তকমা দেওয়া হয়।

তবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের বিদেশীদের আঞ্চলিক রেজিস্ট্রেশন অফিসের ‘ভারত ছাড়ো নোটিশে’ এই বিষয়ে কোনও উল্লেখ করা হয়নি। ওই নোটিশ পাওয়ার ১৫ দিনের মধ্যে তাঁকে দেশ ছাড়তে হবে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের নোটিশে লেখা রয়েছে, “আফসারা অনিকা মিমকে সরকার বিরোধী কাজে যুক্ত থাকতে দেখা গিয়েছে। এই সকল কার্যকলাপ ভিসার নিয়মবিরোধী তাই ভিসা নিয়ম লঙ্ঘন করেছে”।