ঢাকা: ফের পেঁয়াজ সমস্যা। ভারত থেকে আচমকা রফতানি বন্ধের জেরে বাংলাদেশে পেঁয়াজের দামে লাগছে আগুন। হু হু করে বাড়ছে দাম। শুরু হচ্ছে কালোবাজারি।

গত বছরের মতো পরিস্থিতি তৈরি হতে যাচ্ছে। যদিও সরকার জানিয়েছে, দেশে পর্যাপ্ত আছে পেঁয়াজ মজুত। কিন্তু দাম বাড়তে থাকায় খুচরো বাজারের ক্রেতার বেশি পরিমানে পেঁয়াজ কিনছেন। কেজি প্রতি ১০০ টাকা পার করতে চলেছে পেঁয়াজ। ঢাকার পাশাপাশি বরিশাল, চট্টগ্রাম, রংপুর, ময়মনসিংহ, সিলেট,সর্বত্র পেঁয়াজের দাম চড়ছে।

ভারত থেকে রফতানি বন্ধের ঘোষণা হতেই পেঁয়াজের বাজারে অস্থির অবস্থা। পাইকারি ও খুচরো উভয় বাজারেই লাগামহীন পেঁয়াজের দাম। একাংশ ব্যবসায়ীরা তার এই সুযোগে কালোবাজারি শুরু করেছে।

পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ করে দেওয়ায় ভারত থেকে গত তিন দিনে পেঁয়াজের কোনো ট্রাক যশোরের বেনাপোল বন্দরে প্রবেশ করেনি। ওপারে পেট্রাপোলে পেঁয়াজ বোঝাই ১৫০টি ট্রাক ও তিনটি রেলের র‍্যাক বাংলাদেশে প্রবেশের অপেক্ষায় দাঁড়িয়ে। আটকে থাকা পেঁয়াজে ধরছে পচনশীল। দুর্গন্ধ ছড়াতে শুরু করেছে।

পেট্রাপোলের ব্যবসায়ীরা সরকারের এমন সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ। তারা জানিয়েছেন, ট্রাক ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়া ছাড়া উপায় নেই। পেঁয়াজে পচন ধরা শুরু হয়েছে। মোটা অঙ্কের লোকসান গুনতে হবে।

২০১৯ এর সেপ্টেম্বর মাসে ভারত থেকে আচমকা বাংলাদেশে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ হয়। পাকিস্তান ও মিশর তখন চাহিদা মেটায়।

বিবিসি জানাচ্ছে, ভারতে পেঁয়াজের দাম তিনগুণ বেড়ে যাওয়ার পর সরকার সব ধরণের পেঁয়াজ রফতানিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দক্ষিণ ভারতের রাজ্যগুলোতে বন্যায় এবার গ্রীস্মকালীন ফসল মার খাওয়ার পর সেখানে পেঁয়াজের দাম বাড়তে থাকে। বাজার অস্থির হয়। এর পরেই রফতানিতে লাগাম টানে সরকার।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।