ঢাকা:  বাংলাদেশের সরকারি কর্মচারীদের জন্যে কেলেন্ডার প্রকাশ করল বাংলাদেশ সরকার। আগামী বছর অর্থাৎ ২০২০ সালের জন্যে এই কেলেন্ডার প্রকাশ করা হয়েছে। আগামী বছর ২০২০ সালে ২২ দিনের সরকারি ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। আজ সোমবার হাসিনা সরকারের মন্ত্রিসভার গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক ছিল। সেই বৈঠকেই আগামী বছরের ছুটির এই তালিকায় অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এই বৈঠক হয়। যেখানে এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় বলে স্থানীয় প্রকাশিত সংবাদে জানানো হয়েছে। এই বৈঠক শেষে মন্ত্রি পরিষদের সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম জানিয়েছেন, আগামী ২০২০ সালের সরকারি ছুটির তালিকার অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রি পরিষদ। এর মধ্যে সাধারণ ছুটি ১৪দিন। আর সরকারের নির্বাহী আদেশে ছুটি থাকবে ৮ দিন। সব মিলিয়ে মোট ২২ দিন।

এর বাইরে মুসলমাদের বিভিন্ন উৎসবের জন্য ঐচ্ছিক ৫ দিন, হিন্দু ধর্মালম্বীদের ৮ দিন, খ্রিস্টানদের জন্য ৮ দিন এবং বৌদ্ধদের জন্য ৫ দিন ছুটি থাকবে। এছাড়া পার্বত্য নৃগোষ্ঠীর বিভিন্ন ধর্মালম্বীদের জন্য ২ দিন ঐচ্ছিক ছুটি থাকবে।

২২ দিনের মধ্যে সাপ্তাহিক ছুটি ৮ দিন পড়েছে। আর ১৪ দিনের মধ্যে ৭ দিন সাপ্তাহিক ছুটি থাকে। গত বছর সাধারণ ছুটি ছিল ১৯ দিন। এই বছর আরও দুটি ছুটি বেরেছে। খুব শীঘ্রই এই নির্দেশিকা সমস্ত সরকারি দফতরে পৌঁছে যাবে বলে স্থানীয় প্রকাশিত খবরে জানানো হয়েছে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।