ঢাকা: কোভিড-১৯ অতিমারির কারণে চলতি বছর মাধ্যমিক বার্ষিক পরীক্ষা হচ্ছে না। বুধবার সাংবাদিক সম্মেলন একথা জানান শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি। তিনি বলেন, ৩০ কর্মদিবসের জন্য একটি পাঠ্যসূচি তৈরি করা হয়েছে।এই পাঠ্যসূচির ভিত্তিতে প্রতি সপ্তাহে শিক্ষার্থীদের অ্যাসাইমেন্ট করতে হবে।

প্রতি সপ্তাহে এই অ্যাসাইমেন্ট দেয়া ও জমা নেওয়া হবে। তবে এটি পরবর্তী ক্লাসে উত্তীর্ণ হওয়ার জন্য প্রভাব ফেলবে না। করোনাভাইরাস সংক্রমণের মধ্যে মাধ্যমিক পরীক্ষা নিয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, এবারের যে পরিস্থিতি তাতে কোনও বার্ষিক পরীক্ষা হচ্ছে না।

অ্যাসাইনমেন্ট ভিত্তিক মূল্যায়ণ শুধুমাত্র আমাদের বোঝার জন্য যে পড়ুয়াদের কোথায় কোথাও দুর্বলতা আছে। সেগুলো পরের ক্লাসে কাটিয়ে ওঠার ব্যবস্থা করব।

এই মূল্যায়নের যৌক্তিকতা তুলে ধরে ডা. দীপু মনি বলেন, এই মূল্যায়ন (অ্যাসাইনমেন্ট) তার পরের ক্লাসে উত্তীর্ণ হওয়ার ক্ষেত্রে কোনও ধরনের প্রভাব ফেলবে না।

ফাইল ছবি

শিক্ষামন্ত্রী আরও জানান, এই মূল্যায়নের মাধ্যমে পরবর্তী বর্ষে তাদেরকে কোন কোন জায়গায় দুর্বতলা আছে তা পরের ক্লাসে অ্যাড্রেস করব এবং তা কাটিয়ে উঠতে সহায়তা করতে পারব সেই কাজের জন্য এই মূল্যায়ন করা হবে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

জীবে প্রেম কি আদৌ থাকছে? কথা বলবেন বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ অর্ক সরকার I।