ঢাকাঃ  নারায়ণগঞ্জের নিতাইগঞ্জ থেকে সাইনবোর্ড মোড় এবং চিটাগাং রোড হয়ে পঞ্চবটি পর্যন্ত ইলেকট্রিক ট্রেন চালুর প্রস্তাবে সায় দিয়েছে হাসিনা সরকারের মন্ত্রিসভা কমিটি। অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের সভাপতিত্বে সচিবালয়ে অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে ‘নারায়ণঞ্জ সিটি করপোরেশনে লাইট রেল ট্রানজিট (এলআরটি) স্থাপনের নীতিগত প্রস্তাব’ অনুমোদন করা হয়।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোসাম্মৎ নাসিমা বেগম সাংবাদিকদের বলেন, “লাইট র‌্যাপিড ট্রানজিট একটি গণপরিবহন ব্যবস্থা। ইলেকট্রিক ট্রেনের মাধ্যমে এক স্থান থেকে অন্য স্থানে যাত্রী পরিবহন করবে।” বিশ্বের ৩৮৮টি শহরে এই ব্যবস্থা চালু আছে। নাসিমা বলেন, নারায়ণগঞ্জের এই প্রকল্পটি ‘জিটুজি’ ভিত্তিতে এবং পিপিপি পদ্ধতিতে বাস্তবায়নের প্রস্তাব করা হয়েছে।

এর মধ্যে নারায়ণগঞ্জের নিতাইগঞ্জ থেকে চাষাঢ়া হয়ে সাইনবোর্ড মোড় পর্যন্ত একটি রুটের দৈর্ঘ্য হবে ১১ কিলোমিটার। আর চিটাগাং রোড হয়ে পঞ্চবটি পর্যন্ত আরেকটি রুট ১২ কিলোমিটার দীর্ঘ। ইলেকট্রিক ট্রেন চালু হলে এসব রুটে প্রতিদিন গড়ে এক লাখ ২০ হাজার যাত্রী যাতায়াত করতে পারবেন। অন্যদিকে, অতিরিক্ত সচিব বলেন, দুই লাইনের ইন্টারচেইঞ্জ স্টেশন হবে চাষাঢ়ায়।

“জিটুজি ভিত্তিতে কাজ করতে বাংলাদেশ সরকার ও সিঙ্গাপুরের মধ্যে একটি ফ্রেমওয়ার্ক এগ্রিমেন্ট আছে। তারা (সিঙ্গাপুর) ট্রান্সপোর্ট, টুরিজমসহ বিভিন্ন খাতে কাজ করবে। যোগাযোত খাতের জন্য প্রস্তাব চাওয়া হলে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন এই প্রস্তাব দাখিল করে।” নাসিমা বলেন, “ইলেকট্রিক ট্রেন চালুর প্রস্তাবে মন্ত্রিসভা কমিটি নীতিগত অনুমোদন দেওয়ায় এখন সম্ভাব্যতা যাচাই করা হবে। দেখা হবে কত খরচ পড়তে পারে। কে কাজ করবে তাও সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের সময় চূড়ান্ত হবে।”