ঢাকা: সরস্বতী পুজোর দিন কেন ভোট নেওয়া হচ্ছে এমনই দাবি তুলে বাংলাদেশের সংখ্যালঘু পড়ুয়ারা আমরণ অনশনে বসেছেন। ঢাকা পুর নিগমের নির্বাচনের দিন আগামী ৩০ জানুয়ারি। এই বিতর্কে এবার মুখ খুললেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেছেন, ইসি চাইলে ভোট গ্রহণের দিন পিছিয়ে দিতে পারে। ক্ষমতাসীন দলের সাধারণ সম্পাদকের মন্তব্যে ঢাকা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের দিন ঘিরে নতুন বিতর্ক। মনে করা হচ্ছে, সংখ্যালঘু পড়ুয়াদের অনশন কর্মসূচির ধাক্কায় এমনই জানালেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। শুক্রবার আওয়ামী লীগ সম্পাদক সাংবাদিকদের বলেন, হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের দ্বিতীয় বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব সরস্বতী পূজা।

এ ধর্মীয় উৎসবের প্রতি সম্মান দেখিয়ে তাদের সঙ্গে ইসি আলাপ আলোচনা করে একটি সমাধান করতে পারে তবে ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনের দিন পিছিয়ে দেওয়ার জন্য সংখ্যালঘু সংগঠনগুলির তরফে যে রিট আবেদন করা হয়েছিল আদালতে। সেই আবেদন আগেই খারিজ হয়েছে। নির্বাচন কমিশনের ধার্য করা দিনকেই আদালত বহাল রেখেছে। এর পরেই সংখ্যালঘু হিন্দু সমাজে বিক্ষোভ ছড়িয়েছে আরও। প্রথমে নির্বাচন কমিশন দফতরে ঘেরাও অভিযান পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়েই শুরু হয়েছে আমরণ অনশন। পড়ুয়াদের এই অবস্থান বিক্ষোভের জেরে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের দিন ঘিরে বিতর্ক বাড়ছেই।

সরকার বিরোধী ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক তথা বাংলাদেশের প্রথম বিদেশমন্ত্রী ড. কামাল হোসেন বলেন, সরস্বতী পুজোর দিন নির্বাচন অনৈতিক। এটি সংখ্যালঘু সমাজকে আঘাত করছে। এরপরেই মুখ খুললেন ক্ষমতায় থাকা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, নির্বাচনসংক্রান্ত যে কোনও বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়ার এখতিয়ার নির্বাচন কমিশনের। এখানে সরকারকে দোষারোপ করা অযৌক্তিক। ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন ঘিরে ইতিমধ্যেই ক্ষমতায় থাকা আওয়ামী লীগ ও বিরোধী বিএনপি প্রার্থীদের প্রচার অভিযান চলছে। লড়াই করছে জাতীয় পার্টি এবং অন্যান্য দলগুলি। তবে মূল লড়াই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দল আওয়ামী লীগের সঙ্গে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার দল বিএনপির। আর্থিক দুর্নীতির মামলায় জেলে রয়েছেন খালেদা।