ঢাকা- পুলিশ চেকপোস্টে হামলা হয়েছে শনিবার। পরের দিন সেই দায় নিয়েছে আইএস জঙ্গি সংগঠন। অথচ, ৭২ ঘণ্টা পার হলেও কোনও জঙ্গি গ্রেফতার তো দূরের কথা চিহ্নিত করতে পারা যায়নি। অস্বস্তিতে ঢাকা মহানগর পুলিশ। শনিবার রাতে ঢাকার জনবহুল সায়েন্স ল্যাবরেটরি এলাকায় ট্রাফিক পুলিশ বক্সের পাশে বোমা বিস্ফোরণ হয়।

একই কায়দায় সম্প্রতি কয়েকবার হামলা হয় সেবারও আইএস দায় নিয়েছিল। তদন্তে উঠে এসেছে, জঙ্গিরা পুলিশকে লক্ষ্য করে এই বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটিয়েছে। জড়িতদের শনাক্তে আপ্রাণ চেষ্টা চলছে। শনিবার রাতে বোমা বিস্ম্ফোরণে এএসআই সহ দু’জন জখম হন। ঢাকা পুলিশের ধারণা, ক্রমে বাংলাদেশে শক্তি বাড়াচ্ছে ইসলামিক স্টেট। এর আগেও গত চার মাসে ঢাকার চারটি এলাকায় পুলিশকে লক্ষ্য করে বোমা বিস্ম্ফোরণ এবং বোমা ফেলে রাখার ঘটনা ঘটে।

এর মধ্যে মালিবাগ ও গুলিস্তানের বিস্ম্ফোরণে তিন পুলিশ সদস্য সহ ছয়জন জখম হন। বাংলাদেশ জঙ্গি দমন শাখা কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট (সিটিটিসি) জানাচ্ছে, জঙ্গিরা পুলিশের মনোবল ভাঙতেই বার বার এমন বিস্ম্ফোরণ ঘটাচ্ছে়।

বাংলাদেশকে ভিত্তি করে ভারত সহ দক্ষিণ এশিয়ায় নাশকতা ছড়াতে তৎপর আইএস। বাংলায় পোস্টার দিয়ে তেমনই বার্তা দিয়েছে তারা। পশ্চিমবঙ্গ তাদের অন্যতম টার্গেট। গোয়েন্দা রিপোর্টে বলা হয়েছে- বাংলাদেশি জঙ্গি সংগঠন জেএমবি , নব্য জেএমবি, সহ বেশ কিছু সংগঠন সক্রিয় ভারতে।