ঢাকা: জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের উত্থাপিত প্রায় সমস্ত দাবি দাওয়াই মেনে নিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। দিনকয়েকের টালবাহানার পর অবশেষে ক্রিকেটে ফিরছেন শাকিব আল হাসান সহ বাংলাদেশ ক্রিকেটাররা।

নয়া দু’দফা দাবি সহ মোট ১৩ দফা দাবি নিয়ে ধর্মঘটে সামিল হওয়া বাংলাদেশ ক্রিকেটারদের সঙ্গে বুধবার সন্ধ্যায় এক জরুরি বৈঠকে বসেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বোর্ডের ডিরেক্টরও। অচলাবস্থা কাটাতে ক্রিকেটারদের সঙ্গে ক্রিকেটকর্তাদের সেই জরুরি বৈঠক ফলপ্রসূ হয়েছে বলেই জানা গিয়েছে। তাঁদের প্রস্তাবিত মোট ১১ দফা দাবি মেনে নেওয়ার বিষয়ে সবুজ সংকেত পাওয়ার পরই আগামী ২৫ অক্টোবর আসন্ন ভারত সফরের জন্য প্রস্তুতি শিবিরে যোগদান করার কথা ঘোষণা করে শাকিব নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ ক্রিকেটাররা।

গোটা ঘটনায় মুখ্য ভূমিকা পালনকারী টেস্ট এবং টি-২০ দলনায়ক শাকিব আল হাসান এবিষয়ে বলেন, ‘বৈঠকে উপস্থিত বিসিবি প্রেসিডেন্ট এবং ডিরেক্টর আমাদের সমস্ত দাবি-দাওয়া শুনেছেন এবং যত দ্রুত সম্ভব সেগুলি পূরণ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। তাঁদের প্রতিশ্রুতিতে আশ্বস্ত হয়েই প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটাররা শনিবার থেকে তাঁদের খেলা শুরু করবে এবং জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা আগামী ২৫ অক্টোবর থেকে ভারত সফরের জন্য প্রস্তুতি শিবিরে যোগদান করবে।’

সবমিলিয়ে জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের ধর্মঘটের কারণে বাংলাদেশের ভারত সফর ঘিরে যে অনিশ্চয়তার কালো মেঘ ঘনীভূত হয়েছিল, অবশেষে তা দূর হল। তবে জানা গিয়েছে, ১৩ দফার মধ্যে আপাতত শাকিবদের ১১ দফা মেনেছে সেদেশের ক্রিকেট বোর্ড। বুধবারই যোগ হওয়া অতিরিক্ত দু’দফা দাবি নিয়ে সিদ্ধান্ত আগামীতে আলোচনার মধ্যে দিয়ে ঠিক করা হবে বলে জানিয়েছে বিসিবি। যার মধ্যে রয়েছে রাজস্ব আয়ের একটা অংশ ক্রিকেটারদের প্রদান করা এবং বোর্ডের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার বিষয়টি।

উল্লেখ্য, খেলোয়াড়দের বেতন বৃদ্ধি, বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে খেলা বিদেশি খেলোয়াড়দের সঙ্গে দেশীয় ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিকের ফারাক দূর করা, জাতীয় ক্রিকেট লিগে বেতন বৃদ্ধি সহ ১১ দফা দাবি নিয়ে সোমবার থেকে ধর্মঘটের ডাক দেয় বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই হঠাৎ বাংলাদেশের জাতীয় ক্রিকেট দলের সিনিয়র খেলোয়াড়রা ধর্মঘটে যাওয়ায় আন্তর্জাতিক ক্রিকেট মহলে আলোড়ন পড়ে যায়।

শাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল, মুশফকিুর রহিম, মাহমুদুল্লাহ সহ প্রায় সব ক্রিকেটারই যোগদান করেন ধর্মঘটে। ক্রিকেটাররা জানান, দাবি পূরণ না হলে সবধরণের ক্রিকেটীয় অবস্থান থেকে দূরে থাকবেন তাঁরা। আগামী ২৫ অক্টোবর থেকে শুরু হতে চলা ভারত সফরের জন্য প্রস্তুতি শিবিরে অংশগ্রহণ থেকেও বিরত থাকবেন বলে জানান শাকিবরা। মঙ্গলবার ধর্মঘটী ক্রিকেটাররা একটি প্রভাবশালী মহলের ষড়যন্ত্রের অংশীদার বলে জানান বিসিবি বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। এমনকি ধর্মঘটীদের বিরুদ্ধে অ্যাকশন নেওয়ারও ইঙ্গিত দেন তিনি।