ঢাকা:  দেড় লক্ষের বেশি করোনা রোগী। মৃতের সংখ্যাও বাড়ছে। হচ্ছে জোন ভিত্তিক লকডাউন। এসবের মাঝেই আসন্ন কোরবানির ঈদ ঘিরে বাড়ছে আগ্রহ। যাবতীয় রেকর্ড ভেঙে একটি ষাঁড়ের দাম উঠল ৫০ লক্ষ টাকা। বাংলার বস নামে ষাঁড়টির ওজন ২৬০০ কেজি বা ৬৫ মণ।

এহেন বিশালাকার বাংলার বস কিনে কোরবানি দেওয়ার মতো লোক বাংলাদেশে এই মুহূর্তে মিলবে কিনা ঠিক নেই। কারণ, করোনাভাইরাসের হামলায় অর্থনীতি তে লেগেছে ধাক্কা। তবে বাংলার বস নিয়ে আশায় রয়েছেন মালিক আসমত আলি গাইন। তিনি যশোরের বাসিন্দা।

তাঁর খামারে থাকা বিশালাকার বাংলার বস ছাড়াও আরও চোখ ধাঁধানো গরু রয়েছে। সেই সব গরু দেখতে প্রতিদিন তার বাড়িতে ভিড় জমাচ্ছেন অনেকে। বাংলার বস নামের ষাঁড়টি ব্রিটিশ ফ্রিজিয়ান জাতের। গত কোরবানির ঈদে বাংলার বস ১৭ লক্ষ টাকায় কিনেছিলেন আসমত আলি।

গম, ভুট্টা, ছোলার ভুষি, চিটেগুড়, ভিজানো চাল, ভাত, খড়, নেপিয়ার ঘাস ও কুঁড়ো মিলে দিনে দু’বার করে মোট ৮০ থেকে ৯৫ কেজি খাবার খাওয়ানো হয় বাংলার বস কে। ফলে সেটি বিরাট আকার নিয়েছে।

আসমত আলির দাবি ‘বাংলার বস’ বাংলাদেশের মধ্যে এ যাবৎকালের মধ্যে সব থেকে বড়। এর ওজন প্রায় ৬৫ মণ। আসমতের ক্ষোভ প্রাণিসম্পদ বিভাগ সব জেনেও বাংলার বস কে নিয়ে আগ্রহ দেখায়নি। তবে স্থানীয় প্রাণিসম্পদ আধিকারিক আবুজার সিদ্দিকী বলেন, এমন বড় কোরবানির ষাঁড়ের বিষয়ে তিনি শুনেছেন।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ