ঢাকা: নির্বাচন হচ্ছে জানুয়ারিতেই। ঢাকার দুটি পুরনিগম ( সিটি কর্পোরেশন ) দখলে ঝাঁপিয়ে পড়ছে শাসক বিরোধী সব পক্ষ। সরস্বতী পুজোর কারণে নির্বাচনের দিন পিছিয়ে দেওয়ার আবেদন খারিজ আদালতে। ভোট হচ্ছে ৩০ জানুয়ারি। ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ দুটি পুর নিগমের ভোট ঘিরে উত্তেজনা তুঙ্গে। কারণ বাংলাদেশের রাজধানীর মধ্যে এই দুই সিটি কর্পোরেশন সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ।

গত ২২শে ডিসেম্বর প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নুরুল হুদা নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেন। ভোট গ্রহণ করার তারিখ নির্ধারণ করা হয় ৩০ শে জানুয়ারি। ভোটের দিন ঘোষণার পর থেকে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের পক্ষ থেকে নির্বাচন পিছিয়ে দেওয়ার দাবি জানায়। বলা হয় বাংলাদেশ সংখ্যালঘুদের অন্যতম সরস্বতী পুজো রয়েছে সেই সময়।

এই বিষয়ে নির্বাচন কমিশনকেও চিঠি দেওয়া হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হলের প্রাধ্যক্ষ ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের রিটার্নিং কর্মকর্তার দফতরে ভোট পিছিয়ে দেওয়ার একটি আবেদন করেন ভোটের দিন পরিবর্তনের জন্য মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে বাংলাদেশ হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ। তবে নির্বাচনের দিন ৩০ তারিখেই ধার্য হল। নির্বাচনে মূল লড়াই আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে। লড়াইয়ে রয়েছে জাতীয় পার্টি, বাম দলগুলি ‌। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ পরপর তিনবার ক্ষমতায় এসেছে বাংলাদেশে। বিএনপির বদলে জাতীয় সংসদে বিরোধী আসন পেয়েছে জাতীয় পার্টি। তবে বিশ্লেষকরা বলছেন, মূল লড়াই সেই হাসিনা ও খালেদার দলের মধ্যে