ঢাকা: অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপজয়ের আনন্দে মাতোয়ারা গোটা বাংলাদেশ৷ উদ্দীপণায় রাত জাগল ঢাকা৷ শুধু শহর ও শহরতলীতেই নয়, বাংলাদেশের প্রত্যন্ত গ্রামগুলিতেও মাঝরাতে বেরল বিজয় মিছিল৷ চলল আবির খেলা৷ বিশ্বজয়ের আনন্দ উদযাপনে পিছিয়ে থাকল না বিশ্ববিদ্যালয়গুলিও৷

রবিবার আইসিসি অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের ফাইনালে ভারতকে ডাকওয়ার্থ-লুইস নিয়মে ৩ উইকেটে পরাজিত করে বাংলাদেশের যুব ক্রিকেট দল৷ প্রথমবার ফাইনালে উঠেই খেতাব হাতে তোলে তারা৷ এর আগে ক্রিকেটের কোনও পর্যায়েই এতবড় সাফল্য আর নেই বাংলাদেশের৷ ছেলেদের অথবা মেয়েদের ক্রিকেটে কখনই কোনও বিশ্বকাপের ফাইনালে ওঠেনি বাংলাদেশ৷ সেদিক থেকে যুব বিশ্বকাপ জয় বাংলাদেশের ক্রিকেটের নবযুগের সূচনা হিসেবেই বর্ণনা করা হচ্ছে ওদেশের ক্রিকেটমহলে৷

আরও পড়ুন: বিশ্বকাপ ফাইনাল শেষে হাতাহাতিতে জড়ালেন দু’দলের ক্রিকেটাররা

ঐতিহাসিক ফাইনালের সাক্ষী থাকতে বাংলাদেশের বহু জায়গায় জায়ান্ট স্ক্রিণে খেলা দেখানোর ব্যবস্থা করা হয়েছিল৷ দল চ্যাম্পিয়ন হওয়া মাত্র বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাসে মাতে গোটা দেশ৷ রাজপথে নেমে আসে মানুষ৷ বেরোয় জাতীয় পতাকা নিয়ে শোভাযাত্রা৷ ঢাকার রাজপথে ছিল মানুষের ঢল৷

উচ্ছ্বাস ছিল পোচেস্ট্রুমের গ্যালারিতেও৷ বাংলাদেশের সমর্থনে বহু মানুষ এসেছিলেন খেলা দেখতে৷ ম্যাচের পর দলের ভিকট্রি ল্যাপের সঙ্গে গ্যালারিতে দর্শকদের পাগলামিও ছিল চোখে পড়ার মতো৷

আরও পড়ুন: বিশ্বজয়ের মঞ্চে সমর্থকদের বংলায় বার্তা বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়কের

এদিকে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর বাংলাদেশের যুব ক্রিকেট দল অভিনন্দনের জোয়ারে ভাসছে৷ শুধু দেশের ক্রিকেটমহলেরই নয়, অভিনন্দন বার্তা আসছে ক্রিকেটবিশ্বের প্রতিটি প্রান্ত থেকে৷ বাংলাদেশের এমন সাফল্যকে স্বীকৃতি দিতে কুণ্ঠাবোধ করেনি ভারতীয় ক্রিকেটমহলও৷ হরভজন সিং, ইরফান পাঠানের মতো বহু ভারতীয় ক্রিকেটার সোশ্যাল মিডিয়ায় অভিনন্দন জানিয়েছেন বাংলাদেশকে৷