পোচেস্ট্রুম: স্বল্প রানের পুঁজি নিয়েও ভারত লড়াই চালায় শেষ পর্যন্ত৷ তবে যথেচ্ছ অতিরিক্ত রান দেওয়ার মাশুল দিয়ে ভারতকে আইসিসি অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের ফাইনালে হারতে হয় বাংলাদেশের কাছে৷ ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন ভারতকে ৩ উইকেটে হারিয়ে প্রথমবার বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয় বাংলাদেশ৷ টুর্নামেন্টের ইতিহাসে প্রথমবার ফাইনালে উঠেই ইতিহাস গড়ে টাইগাররা৷

পোচেস্ট্রুমে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নামে ভারত৷ ধীর গতিতে ইনিংস শুরু করার পর অপ্রত্যাশিত ব্যাটিং বিপর্যয়ে ভারত ৪৭.২ ওভারে অল-আউট হয়ে যায় ১৭৭ রানে৷ ব্যাট হাতে কার্যত একা লড়াই চালান যশস্বী জসওয়াল৷

আরও পড়ুন: টেলিভিশনে ভাইদের ফাইনাল দেখছেন কোহলিরা, ছবি টুইট বিসিসিআই’য়ের

জবাবে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশ দাপটের সঙ্গে ইনিংস শুরু করলেও রবি বিষ্ণোইয়ের ঘূর্ণিতে পর পর উইকেট হারিয়ে একসময় চাপে পড়ে যায়৷ তবে ক্যাপ্টেন আকবর আলি ও ওপেনার পারভেজ হোসেন ইমনের ধৈর্যশীল ইনিংস জয় এনে দেয় বাংলাদেশকে৷

শেষবেলায় ভাগ্য কিছুটা সঙ্গ দেয় বাংলাদেশকে৷ জয়ের জন্য বাংলাদেশের যখন ৫৪ বলে ১৫ রান বাকি, হঠাৎই মুহূর্তের জন্য বৃষ্টি নামে পোচেস্ট্রুমে৷ কয়েক মিনিটের বৃষ্টিতে খেলা সাময়িকভাবে বন্ধ হওয়ায় ডারওয়ার্থ-লুইস নিয়মে জয়ের লক্ষ্য বদলে যায় বাংলাদেশের৷ নতুন করে খেলা শুরু হলে বাংলাদেশকে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হওয়ার জন্য তুলতে হতো ৩০ বলে ৭ রান, যা তারা ২৩ বল বাকি থাকতেই তুলে নেয়৷ অর্থাৎ বাংলাদেশের জয়ের লক্ষ্য ছিল ৪৬ ওভারে ১৭০৷ টাইগাররা ৪২.১ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে পৌঁছে যায় জয়ের লক্ষ্যে৷

আরও পড়ুন: বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ ৫টি অর্ধশতরানের নজির যশস্বীর

ভারতের হয়ে যশস্বী সর্বোচ্চ ৮৮ রান করেন৷ এছাড়া তিলক বর্মা ৩৮ ও ধ্রুব জুরেল ২২ রান করেন৷অভিষেক দাস ৪০ রানে ৩টি উইকেট দখল করেন৷ ২টি করে উইকেট নেন শোরিফুল ইসলাম ও তানজিম হাসান শাকিব৷ বাংলাদেশের হয়ে ইমন ৪৭ ও আকবর অপরাজিত ৪৩ রান করেন৷ রবি বিষ্ণোই ৩০ রানে ৪টি উইকেট নেন৷ ২৫ রানে ২টি উইকেট নেন সুশান্ত মিশ্র৷ ১৫ রানে ১টি উইকেট যশস্বীর৷ ভারত মোট ৩৩ রান অতিরিক্ত হিসেবে উপহার দেয় প্রতিপক্ষকে৷ ম্যাচের সেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হন আকবর৷ সিরিজ সেরা হয়েছেন যশস্বী৷

প্রশ্ন অনেক: দ্বিতীয় পর্ব