ঢাকা:  নতুন করে জটিল হচ্ছে বাংলাদেশ-মায়ানমার সীমান্ত। গত কয়েকদিনে লাগাতার বাংলাদেশের আকাশ সীমায় ঢুকেছে মায়ানমারের সামরিক কপ্টার। ইতিমধ্যে ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে ঢাকা। কিন্তু প্রতিবাদ করেই থেমে থাকতে রাজি নয় বাংলাদেশ। জানা গিয়েছে, মায়ানমার বাংলাদেশ সীমান্তে আঁটসাঁট করা হচ্ছে নিরাপত্তা। ইতিমধ্যে মায়ানমার বাংলাদেশ সীমান্তে বাড়ানো হয়েছে সেনাবাহিনীর সংখ্যা। একই সঙ্গে সীমান্তে প্রতি মুহূর্তে নজরদারি চালাচ্ছে যুদ্ধবিমান।বঙ্গোপসাগরে যুদ্ধজাহাজের টহলদারি বাড়াচ্ছে বাংলাদেশ নৌসেনা। একদিকে ক্রমশ সীমান্ত পেরিয়ে রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে ঢুকে পড়ার চাপ অন্যদিকে মায়ানমার সেনাবাহিনীর বারবার আকাশসীমা লঙ্ঘন। আর তাই এক ঢিলে দুই পাখি মারতে সীমান্তের নজরদারি বাড়াচ্ছে বাংলাদেশ।

প্রসঙ্গত, কয়েক দফায় শুক্রবার বাংলাদেশের সীমান্ত পেরিয়ে আসে মায়ানমারের সামরিক কপ্টার। এই ঘটনায় চরম ক্ষুব্ধ বাংলাদেশ। ঘটনার পরেই বাংলাদেশে মায়ানমারের ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রদূত অং মিন্টকে তলব করে বিদেশমন্ত্রক। মায়ানমারের হেলিকপ্টারের বাংলাদেশের আকাশসীমা লঙ্ঘনের তীব্র প্রতিবাদ জানানো হয়।

কূটনৈতিক সূত্র জানায়, মায়ানমারের হেলিকপ্টার সেপ্টেম্বরের ১০, ১২ ও আজ ১৫ তারিখে বাংলাদেশের আকাশসীমা লঙ্ঘন করেছে। এরই প্রতিবাদ জানানো হয়েছে দেশটির ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রদূতকে। এর আগে, অগস্টের ২৭ ও ২৮ এবং এ মাসের ১ তারিখে কয়েক দফা বাংলাদেশের আকাশসীমা লঙ্ঘন করেছিল মায়ানমারের হেলিকপ্টার। সেই সময়েও এই ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানানো হয়। একই সঙ্গে যাতে এই ঘটনা বারবার না ঘটে সেজন্যে বলা হয়। কিন্তু কিছুদিনের মধ্যে ফের সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশের আকাশে চক্কর কাটল মায়ানমারের সেনা কপ্টার।