স্টাফ রিপোর্টার , কলকাতা : নরেন্দ্র মোদী হোক কিংবা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে শিক্ষক দিবসের জন্য বিদ্যাসাগরকে প্রাধান্য দেবে তার প্রতি কৃতজ্ঞ থাকবে ওঁরা। কোনও রাজনৈতিক মত নয়। এই ভাবনাকে দূরে রেখে বিদ্যসাগরের জন্মদিনকে শিক্ষক দিবস হিসাবে পালন করানোর ভাবনায় সচেষ্ট বাংলাপক্ষ। উদ্দেশ্য একটাই বাংলার সম্মান তুলে ধরা। বিদ্যাসাগরের কৃতিত্ব তুলে ধরা সারা ভারতের সামনে। তাই মোদী মমতার ঘরে গেল বিশেষ চিঠিও।

বাংলা পক্ষ জানাচ্ছে, ‘ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর বাংলা ও বাঙালির জাতীয় শিক্ষক। বাংলা তথা ভারতে শিক্ষা বিস্তারে তিনি অদ্বিতীয়। নারী শিক্ষা প্রসারে তাঁর অবদান গোটা পৃথিবীতে স্বীকৃতির দাবি রাখে। অন্যান্য বছরের মতো ২৬ সেপ্টেম্বর, পণ্ডিত ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর মহাশয়ের জন্মদিন উপলক্ষে সারা বাংলা জুড়ে ঐ দিনটিকে ‘বাংলার জাতীয় শিক্ষক’ দিবস হিসেবে মহাসমারোহে পালন করা হবে।’

তারা আরও জানাচ্ছে, ‘ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর কে প্রাপ্য সম্মান দিতে পারি আমরাই৷ তাই রাজ্য ও কেন্দ্র সরকারের কাছে আমাদের দাবী, বাংলার এই মহান শিক্ষকের জন্মদিন উপলক্ষে সংগঠনের তরফ থেকে রাজ্য সরকারের কাছে আবেদন করা হয়েছে পণ্ডিত ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর মহাশয়ের জন্মদিনটিকে ‘বাংলার জাতীয় শিক্ষক দিবস’ হিসেবে ঘোষণা করুন। ২৬ সেপ্টেম্বরকে “রাষ্ট্রীয় শিক্ষক দিবস” এর স্বীকৃতি দিতে কেন্দ্র সরকারের কাছে দরবার করুক বাংলার সরকার। একই সঙ্গে রাষ্ট্রীয় শিক্ষা মন্ত্রক তথা সরকারের কাছে আবেদন এই দিনটিকে ‘রাষ্ট্রীয় শিক্ষক দিবস’ হিসেবে গ্রহণ করুন। নবান্নে গিয়ে মাননীয় মুখ্যমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে লেখা চিঠি জমা করা হয়েছে এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দেওয়া হয়েছে।’

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।