মুম্বই : ফের শোকের ছায়া বি-টাউনে। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে অকালে চলে গেলেন জনপ্রিয় অভিনেতা অমিত মিস্ত্রী। শুক্রবার সকালে এই গুজরাটি জনপ্রিয় অভিনেতার মৃত্যু সংবাদ দেন ভারতীয় চলচ্চিত্র টিভি প্রযোজক পরিষদ। ওই সংস্থার তরফে টুইটারে তাঁর মৃত্যুর খবর জানিয়ে শোক প্রকাশ করা হয়।

এই বিষয়ে সিনটা-র তরফে একটি টুইট বার্তায় জানানো হয় যে, “প্রতিভাবান অভিনেতা অমিত মিস্ত্রীর মৃত্যুতে আমরা গভীরভাবে মর্মাহত এবং দুঃখিত। তাঁর পরিবার ও বন্ধুদের প্রতি আমাদের তরফ থেকে রইল আন্তরিক সমবেদনা। আমরা সবাই তাঁর পরিবারের পাশে রয়েছি।”

আমাজন প্রাইমের হিট শো ‘বন্দিশ ব্যান্ডিটস’-এ দেখা গিয়েছিল অমিত মিস্ত্রীকে। এছাড়াও ২০০৪ সাল থেকে তিনি সিনে অ্যান্ড টেলিভিশন অ্যাসোশিয়েশনের সদস্য ছিলেন । “ক্যায়া ক্যাহনা”, ” এক চাল্লিশ কি লাস্ট লোকাল” , “৯৯”, “শোর ইন দ্য সিটি” , “ইয়ামলা পাগলা দিওয়ানা” , ”অ্যা জেন্টেলম্যানের” মতো অজস্র বলিউড ছবিতে অভিনয় করেছেন এই গুজরাটি অভিনেতা। এছাড়াও ছোটো পর্দাতেও বহু চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা গিয়েছে তাঁকে।

গুজরাটি ছবি ও রঙ্গমঞ্চেও চুটিয়ে অভিনয় করতেন তিনি। রুপোলি পর্দার পাশাপাশি ছোটপর্দাতেও নিজের অভিনয়ের জাদুতে দর্শকদের মুগ্ধ করেছেন তিনি। স্টার প্লাস ও সোনি সবের ‘তেনালি রামা’, এবং ‘সাত ফেরো কি হেরা ফেরি’ ধারাবাহিকে অমিত মিস্ত্রীর প্রাণোচ্ছ্বল অভিনয় আজীবন মনে রাখবেন তাঁর ভক্তরা।

অন্যদিকে জনপ্রিয় এই অভিনেতার আকস্মিক প্রয়াণে দুঃখ প্রকাশ করেছেন ফিল্ম প্রোডিউসর আশোক পণ্ডিত। এদিন শোকজ্ঞাপন করে টুইটারে তিনি লেখেন, “আমি এখনও বিশ্বাস করতে পারছি না যে অমিত আর নেই। তাঁর মতো একজন প্রতিভাবান শিল্পীর আকস্মিক প্রয়াণ সিনে জগতের অপূরনীয় ক্ষতি করে দিল। আমি বাকরুদ্ধ। তাঁর পরিবারের প্রতি আমার সমবেদনা রইল।”

এছাড়াও তাঁর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন অভিনেত্রী কুব্রা সাইত। টুইটারে শোক প্রকাশ করে তিনি লিখেছেন, “আপনাকে এই পৃথিবী মিস করবে। আপনার পরিবারের প্রতি সমবেদনা রইল।” টুইটারে তাঁর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন জনপ্রিয় এই অভিনেতার বহু ভক্ত, কলাকুশলী এবং সহকর্মীরা।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.