নয়াদিল্লি: কর্তারপুর করিডর খুলে দেওয়ার ঘটনাকে ভালভাবে দেখছেন না বিজেপি নেতা সুব্রহ্মণ্য স্বামী। তাঁর দাবি, এটা খুবই বিপজ্জনক হতে পারে। এই করিডর দিয়ে পাকিস্তানিদের আনাগোনা হতে পারে এমন আশঙ্কাও প্রকাশ করেছেন তিনি।

এই করিডর খোলার ফলে, কতটা ভয়ঙ্কর অবস্থার সৃষ্টি হতে পারে তার তালিকা তুলে ধরেছেন স্বামী। একইসঙ্গে আর্জি জানিয়েছেন, পাকিস্তানিদের যেন এদেশে প্রবেশ করতে না দেওয়া হয়।

দিন কয়েক আগে পঞ্জাবের নারোয়াল জেলায় অবস্থিত শিখদের পবিত্র গুরুদোয়ারা দরবার সাহিবে যাওয়ার জন্য কর্তারপুর সীমান্ত করিডর খুলে দেয় ভারত। পাকিস্তানকেও তা করতে বলা হয়। ইমরান খানের সরকার তাতে সাড়া দিয়ে সৌজন্য দেখায়।

সেই প্রসঙ্গে এদিন স্বামী বলেছেন, কর্তারপুর করিডোর খোলা ভয়ঙ্কর সিদ্ধান্ত। এর ফায়দা তোলা হতে পারে। কারণ এখানে সেভাবে চেকিং হয় না। তাঁর কথায়, শুধু পাসপোর্ট চেক করলেই চলবে না। দিল্লির চাঁদনি চকে গেলে ২৫০ টাকাতেও পাসপোর্ট পাওয়া যায়। ফলে পাকিস্তানিদের এদেশে প্রবেশ করতে দেওয়া উচিত নয়।

১৫২২-এ এই গুরুদোয়ারা তৈরি করেছিলেন শিখ গুরু। পাকিস্তানের রবি নদীর ধারে অবস্থিত এটি।