বালুরঘাট: দ্রুত এনআরসি কার্যকরের আবেদন জানিয়ে বিরোধী দল ছেড়ে গেরুয়া শিবিরে যোগ দিলেন কর্মী সমর্থকরা। দক্ষিণ দিনাজপুরের কামারপাড়া এলাকার ঘটনা। আজ রবিবার সকালে বালুরঘাট থানার অন্তর্গত কামারপাড়া এলাকায় নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন ও এনআরসি’র সমর্থনে প্রচারে গিয়েছিলেন বিজেপির সাংসদ ডঃ সুকান্ত মজুমদার দলীয় অন্যান্য নেতৃত্ব।

বিজেপি সূত্রে জানা গিয়েছে এদিন সিএএ ও এনআরসি বিষয়টি কি তা সকলের সামনে তুলে ধরা হয়। সেই সময় আরএসপি, তৃণমূল এবং কংগ্রেসের কর্মী সমর্থকরা নিজে থেকেই বিজেপিতে যোগদানের ইচ্ছে প্রকাশ করলে তাঁদের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেওয়া হয়। বিজেপিতে যোগদানকারী সকলেই সকলেই বিরোধী শিবিরের সক্রিয় কর্মী সমর্থক হিসেবে এলাকায় পরিচিত ছিলেন।

এছাড়াও শাসকদলের কর্মীরাও যথেষ্ট জেলার সক্রিয় কর্মী হিসাবেই পরিচিত। এদিনের কর্মসূচিতে সাংসদ ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বিজেপির জেলা সভাপতি বিনয় বর্মন। যদিও দল ছেড়ে বিজেপিতে কেউ যোগ দেওয়ার ঘটনা ভিত্তিহীন বলে জানিয়েছেন তৃণমূলের কার্যকরী সভাপতি দেবাশীষ মজুমদার। এনআরসি নিয়ে ব্যাকফুটে চলে যাওয়ায় লোকেরা এসব রটিয়ে বেড়াচ্ছে বলে তিনি অভিযোগ করেছেন।

সাংসদ সুকান্ত মজুমদার জানিয়েছেন যে সিএএ ও এনআরসি’র নয় তৃণমূল ও অন্যান্য দলগুলি সাধারণ মানুষকে যে ভুল বোঝাচ্ছে তা এদিন কামারপাড়া এলাকার মানুষ বুঝিয়ে দিয়েছেন। খোদ বিরোধীদের কর্মী সমর্থকরাই এদিন সঠিক ব্যাপারটি বুঝতে পেরে এর সমর্থনে সরাসরি বিজেপিতে যোগ দিলেন। এদিন পঞ্চাশটি পরিবারের হাতে পদ্ম পতাকা তুলে দেওয়া হয়েছে বলেও সাংসদ জানিয়েছেন। সাংসদের দাবি, আগামিদিনে আরও মানুষ বিজেপিতে যোগ দেবেন। বাংলায় বিজেপির শক্তি আরও বাড়বে বলে মনে করেন বিজেপি সাংসদ।