পাটনা: ভোটের দিন ঘোষণার পর শুক্রবার বিহারে প্রথম জনসভা করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ প্রচারের ব্যাটন হাতে তুলেই আক্রমণ শানালেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমারের বিরুদ্ধে৷ তাঁকে ‘অত্যধিক অহংকারী’ বলে তোপ দাগলেন মোদী৷

নীতীশ কুমারকে তুলোধোনা করার পাশাপাশি প্রচার ময়দানে নেমেই বিহারের যুবসমাজ ও সমাজের নিচু তলার মানুষের মন পাওয়ার কৌশল নেন নমো৷ কাজের খোঁজে হামশাই ভিন রাজ্যে পাড়ি দিতে হয় বিহারের মানুষকে৷এই সমস্যা দীর্ঘদিনের৷বিজেরপি ক্ষমতায় এলে এই সমস্যার সমাধান হবে বলে প্রতিশ্রুতি দেন তিনি৷প্রধানমন্ত্রীর কথায়, আপনাদের এই সমস্যার সমাধান লুকিয়ে রয়েছে উন্নয়নের আড়ালে৷ বিহারের পরিবর্তন আনতে আপনারা আমার পাশে দাঁড়ান৷

নাম না করেই এদিন নীতীশ কুমারকে কটাক্ষ করে মোদী বলেন, ‘‘বিহারের জন্য যে এক কোটি ৬৫ লক্ষ টাকার প্যাকেজ আমি ঘোষণা করেছিলাম, তা নিয়ে কেউ কেউ প্রশ্ন তুলছেন৷ এই টাকা আসবে কিনা তা নিয়ে সন্ধেহ প্রকাশ করা হচ্ছে৷ কিন্তু আমি প্রশ্ন করতে চাই, এই টাকা আপনাদের কাছে পৌঁছবে তো? আমি টাকা দিলেও, উনি এতটাই ঔদ্ধত্য যে, সে টাকা হয়তো ফেরত পাঠিয়ে দেবেন৷ মোদী আরও বলেন, ‘‘আমি টাকা দিলেও, উনি হয়তো বলবেন মোদীর দেওয়া টাকার দরকার নেই রাজ্যের৷ আমি ওনাকে বিশ্বাস করি না৷

এদিন তাঁর ভাষণে উঠে এসেছিল ঝাড়খণ্ডের প্রসঙ্গও৷ মোদী বলেন, ১৫ বছর আগে ঝাড়খণ্ড বিহারের অংশ ছিল৷ কিন্তু বিজেপি শাসনে ঝাড়খণ্ড এখন দেশের মধ্যে তিন নম্বরে উঠে এসেছে৷ উন্নয়নের পথে এগিয়ে যাচ্ছে ঝাড়খণ্ড৷ সেই সঙ্গে আমেরিকা সফরে গিয়ে সেদেশে বসবাসকারী বিহারিদের সঙ্গেও তিনি দেখা করেছেন বলে জানান নমো৷

বিহারের জনসভায় দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্রীর আরজি, ‘‘যে সকল তরুণ মাওবাদের জন্য অস্ত্র তুলে নিচ্ছেন, তাঁদের উদ্দেশে আমি একটাই কথা বলতে চাই- বুলেট শুধু ধ্বংস করতে পারে৷ব্যালট উন্নয়ন নিয়ে আসে৷উন্নয়নের জন্য ভোট দিন৷