ফাইল ছবি৷

নয়াদিল্লি: মুখে না বললেও বালাকোট এয়ার স্ট্রাইকই এবার ভোটে বিজেপির প্রচারের পুঁজি৷ ‘দেশপ্রেমে’র পালে হাওয়া তুলে ভোট বৈতরণী পাড়ের চেষ্টায় গেরুয়া শিবির৷ কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ভিকে সিংয়েক কথাতেই তা স্পষ্ট৷
বালাকোটে এয়ার স্ট্রাইকের পরিনাম নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে বিরোধী শিবির৷ সেই প্রশ্নকে ‘দেশদ্রোহীর’ তকমা দিতে মরিয়া কেন্দ্রীয় শাসক দলটি৷ বিরোধীদের প্রচার ভোঁতা করতেও তাদের অস্ত্র সেই বালাকোটই৷

আরও পড়ুন: তিন মাস পর কাশ্মীরে স্কুল যেতে দেখা গেল ছাত্র-ছাত্রীদের

লোকসভা ভোট ঘোষণা হয়ে গিয়েছে৷ এয়ারস্ট্রাইক কি আদৌ প্রচারের ইস্যু হতে পারে? এই প্রশ্নের উত্তরের কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর কৌশলী মন্তব্য, ‘‘পাক অধিকৃত কাশ্মীরে প্রবেশ করে এয়ায় স্ট্রাইক এতটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ৷ বিশ্বের কাছে এটা দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে পেরেছে যে ভারত সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে তার শক্তি প্রয়োগ করতে পারে৷ আমি মনে করি দেশবাসী এই পদক্ষেপকে সমর্থন করবে৷’’

এছাড়াও তিনি বলেন, ‘‘ভোট দেওয়ার আগে নিশ্চই মানুষ দেখবেন দেশ কার হাতে সুরক্ষিত৷ একপক্ষ যখন দেশের সুরক্ষায় নিয়ে কড়া পদক্ষেপ করছে, অপর পক্ষ তখন সেই বিষয়টিকে নিয়ে রাজনীতি করতেই ব্যস্ত৷ মানুষ এর বিচার করবে৷ সব কিছু দেখেই ভোট হবে৷’’

আরও পড়ুন: ‘মুসলিম ভোটারদের কথা ভেবে ভোটের তারিখ ঠিক করা হয়নি’

বিজেপির দাবি, গত পাঁচ বছরে দেশের চেহারা অনেকটাই পালটে গিয়েছে৷ উন্নয়নের জোয়ার ভারতজুড়ে৷ যা আদতে ‘সব কা সাথ সব কা বিকাশ’৷ তাহলে কী এয়ার স্ট্রাইকের গুঁতোয় ম্লান হয়ে যাবে গেরিয়া শিবিরের উন্নয়নের প্রচার? ভিকে সিংয়ের উত্তর, ‘‘উন্নয়ন ও এয়ার স্ট্রাইক, সব মিলিয়েই প্রচার হবে৷’’

মোদীকে প্রধানমন্ত্রীর মসনদ থেকে সরাতে জোট বেঁধেছে বিরোধী শিবির৷ এই জোটের উদ্দশ্য নিয়েই প্রশ্ন তুলেছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ভিকে সিং৷ তিনি বলেন, ‘‘পরস্পর বিরোধী কয়েকটি রাজনৈতিক দল কীভাবে বোটের আগে এক হয়ে জোট বাঁধ? এদের উদ্দেশ্য নিয়েই তো প্রশ্ন ওটা উচিত৷’’

আরও পড়ুন: জলে ছুঁড়ে ও আগুনে পুড়িয়ে জঙ্গিদের দেহ লোপাট করে পাকিস্তান

২০১৪ সালে বিজেপিতে যোগ দেন ভিকে সিং৷ গাজিয়াবাদ কেন্দ্র থেকে জয় পান তিনি৷ সাড়ে পাঁচ হাজারের বেশি ব্যবধানে তিনি হারান কংগ্রেসের রাজ বব্বরকে৷ এবারে কী হবে? ভোটে গতবারের তুলনায় বেশি ব্যবধানে জয়ের ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী ভারতীয় সেনাবাহিনীর প্রাক্তন এই কর্তা৷