নয়াদিল্লি: ফের একবার বালাকোট স্ট্রাইকের সাফল্যের কথা বললেন এক সেনা অফিসার। বালাকোট সেনাবাহিনী বড়সড় সাফল্য পেয়েছে বলে উল্লেখ করলেন নর্দান কমান্ডের কমান্ডিং ইন চিফ লেফট্যানেন্ট জেনারেল রণবীর সিং।

সোমবার একটি অনুষ্ঠানে গিয়ে তিনি বলেন, শত্রুপক্ষের ঘাঁটিতে ঢুকে পড়েছিল বায়ুসেনা। টেরর লঞ্চপ্যাডে সরাসরি আঘাত করা হয়। এছাড়া সার্জিক্যাল স্ট্রাইক প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আগেই একটি আরটিআইয়ের জবাবে ডিজিএমও জানিয়েছে যে ২০১৬-র সেপ্টেম্বরেই প্রথম স্ট্রাইক হয় বালাকোটে।

বালাকোট স্ট্রাইক নিয়ে বারবার একাধিক প্রশ্ন উঠেছে।

সাম্প্রতিক একটি রিপোর্ট বলছে ২৬ ফেব্রুয়ারির এয়ারস্ট্রাইকে ১৭০ জন জইশ জঙ্গি প্রাণ হারায়৷ ভারত সরকার বা ভারতীয় বায়ুসেনা এই দাবি করেনি৷ ইতালিও সাংবাদিক ফ্রানচেসকো মারিনো তাঁর প্রতিবেদনে এই দাবি করেন৷

ফ্রানচেসকো মারিনো একমাত্র বিদেশি সাংবাদিক যিনি বালাকোট এয়ারস্ট্রাইকের পর ঘটনাস্থলে পৌঁছতে পেরেছিলেন৷ এর আগে একটি প্রতিবেদনে তিনি দাবি করেছিলেন, ভারতের এয়ারস্ট্রাইক বালাকোটে ১২ জন এমন ব্যক্তিকে নিকেশ করেছে যারা পাকিস্তানের ছায়াযুদ্ধে গুরুত্বপূর্ণ ছিল৷ জইশ এর গুরুত্বপূর্ণ মাথারা, প্রাক্তন আইএসআই এজেন্ট, প্রাক্তন পাক সেনারা নিহত হয়েছে৷ প্রত্যক্ষদর্শীরা মারিনোকে জানিয়েছেন, এয়ারস্ট্রাইকের এক ঘন্টা পর ৩৪-৩৫টি দেহকে ওই জায়গা থেকে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়৷

১৪ ফেব্রুয়ারি কাশ্মীরের পুলওয়ামায় সিআরপিএফ কনভয়ে ভয়াবহ হামলা হয়। সেই হামলায় মৃত্যু হয় অন্তত ৪০ জন জওয়ানের। আর সেই ঘটনার বদলা নিতেই পাকিস্তানের মাটিতে জইশ জঙ্গিদের টার্গেট করে অভিযান চালায় বায়ুসেনা।