মুম্বই: বাল ঠাকরের উপর হামলার বড়স ছক কষেছিল জঙ্গিরা। ১৯৮৯ তে বাল ঠাকরের বাসভবন ‘মাতোশ্রী’কে টার্গেট করা হয়েছিল। এই ঘটনার কথা সম্প্রতি প্রকাশ্যে এনেছেন প্রাক্তন শিব সেনা সদস্য নারায়ণ রানে।

সেইসময় মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন শরদ পাওয়ার। আর কংগ্রেসের ঘোর শত্রু শিবসেনা। কিন্তু তা সত্বেও খালিস্তানি জঙ্গিদের টার্গেট থেকে সেই সময় শিবসেনা প্রধান বাল ঠাকরে, তাঁর স্ত্রী, দুই পুত্র আর তাঁর পরিবারের সদস্যদের প্রাণ বাঁচিয়ে দিয়েছিলেন শরদ পাওয়ারই।

তিনিই বাল ঠাকরের হামলার আশঙ্কার কথা জানান। ফোন করেন উদ্ধব ঠাকরেকে। নারায়ণ রাণে তাঁর আত্মজীবনী ‘নো হোল্ডস বারড: মাই ইয়ার্স ইন পলিটিক্স’-এ লিখেছেন, ‘‘কংগ্রেসের সঙ্গে শিবসেনার সম্পর্ক যেমনই হোক, বাল ঠাকরের সঙ্গে বরাবরই ভাল যোগাযোগ ছিল শরদ পওয়ারের।’

রাণে জানিয়েছেন, শরদের ফোন পেয়ে সঙ্গে সঙ্গেই মুখ্যমন্ত্রীর সচিবালয়ে চলে আসেন বাল ঠাকরের ছোট ছেলে উদ্ধব। তখন সবে বিয়ে করেছে উদ্ধব। শরদ তখন উদ্ভবকে জানান, তাঁদের গোটা পরিবার আর তাঁদের বাড়ি বোমা বিস্ফোরণে উড়িয়ে দেওয়ার ছক কষেছে খলিস্তানি জঙ্গিরা।

আরও বলা হয় যে তাঁর বাড়ির পরিচারকদের মধ্যেই এমন কেউ কেউ রয়েছে, যারা ওই চক্রান্তের সঙ্গে জড়িত। ফলে, যত তাড়াতাড়ি সম্ভব বাড়ি ছেড়ে উদ্ধবদের পরিবারের সকলকে অন্যত্র নিরাপদ জায়গায় চলে যেতে বলেন।

উদ্ধব বাড়িতে এসেই সেই কথা জানান বাল ঠাকরেকে। শুনে বাড়ির সকলকে ডেকে বাল ঠাকরে তাঁদের খুব তাড়াতাড়ি সব কিছু নিয়ে অন্যত্র নিরাপদে কিছু দিনের জন্য গিয়ে থাকতে বলেন।

এক দিনের মধ্যেই স্ত্রী ও পরিবারের অন্য সদস্যদের নিয়ে মাতোশ্রী ছেড়ে অন্যত্র চলে গিয়েছিলেন ঠাকরে আর তাঁর পরিবারের সদস্যরা।