তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়াঃ বন্যপ্রাণ নিয়ে সাধারণ মানুষ ও যুবসম্প্রদায়ের মধ্যে সচেতনতা তৈরী হচ্ছে। ফের প্রমাণ করলো বাঁকুড়ার গ্রাম। রবিবার সকালে তালডাংরার হাড়মাসড়া গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার কেশাতড়া গ্রামের যুবক অনিমেষ পতি একটি বিরল প্রজাতির কচ্ছপ উদ্ধার করে বন দফতরের হাতে তুলে দেন।

স্থানীয় সূত্রে খবর, শনিবার গভীর রাতে গ্রামের রাস্তায় অনিমেষ পতি নামে ওই বিরল প্রজাতির কচ্ছপটি দেখতে পান। তিনি তৎক্ষনাৎ সেটিকে উদ্ধার করে বাড়িতে এনে রাখেন। এদিন সকালে বন দফতরের সিমলাপাল রেঞ্জের হাড়মাসড়া বিট অফিসে গিয়ে বনকর্মী সন্তোষ কুমার মণ্ডলের হাতে তুলে দেন।

গ্রামবাসীরা জানিয়েছেন, অনিমেষ পতি নামে ওই যুবক ও তার বন্ধুরা এর আগে বেশ কয়েকটি ক্যামেলিয়ন উদ্ধার করে বন দফতরের হাতে তুলে দিয়েছিলেন। তারা আরও জানিয়েছেন, ওই যুবক নিজে এই কাজ করার পাশাপাশি ব্যক্তিগত উদ্যোগে বন্যপ্রাণ রক্ষায় সাধারণ মানুষকে সচেতন করতে ধারাবাহিকভাবে নানান কর্মসূচী গ্রহণ করেন।

কচ্ছপ উদ্ধারকারী অনিমেষ পতি এবিষয়ে বলেন, রাতেই গ্রামের রাস্তায় কচ্ছপটি উদ্ধার করি। গভীর রাতে চার কিলোমিটার দূরত্বে বন দফতরের অফিসে এসে কচ্ছপটি তাদের হাতে তুলে দেওয়া সম্ভব না হওয়ায় এদিন সকালে তা তাদের হাতে তুলে দিলাম। বনকর্মী বনকর্মী সন্তোষ কুমার মণ্ডল অনিমেষ পতিকে তার এই মানবিক উদ্যোগের জন্য ধন্যবাদ জানান। একই সঙ্গে কচ্ছপটিকে বেশ কিছুক্ষণ পর্যবেক্ষণে রাখার পর সিমলাপাল জুনকুড়িয়া জলাধারে ছেড়ে দেওয়া হবে বলে তিনি জানান।

সিমলাপাল বনাঞ্চলের বনাধিকারিক বাসুদেব রাজোয়াড় এই কচ্ছপ উদ্ধারের কথা স্বীকার করে বলেন, এর আগেও ওই গ্রামের যুবকরা বেশ কয়েকটি ক্যামেলিয়ন উদ্ধার করে আমাদের হাতে তুলে দিয়েছিলেন। এবার একটি কচ্ছপটি গ্রামের রাস্তায় পেয়ে আমাদের অফিসে এসে কর্তব্যরত কর্মীর কাছে পৌঁছে দিয়েছেন। এই ঘটনায় প্রমাণ করে সাধারণ মানুষের মধ্যে অনেকখানি বন্যপ্রাণ সম্পর্কে সচেতনতা তৈরী করা গেছে বলে তিনি জানান।