স্টাফ রিপোর্টার (বাঁকুড়া); এক বেসরকারী নামী ইংরেজী মাধ্যম স্কুলের আবাসিক ছাত্রকে তিন দিন ধরে খেতে না দিয়ে অকথ্য শারিরীক নির্যাতনের অভিযোগ উঠলো স্কুল ও হোষ্টেল কতৃপক্ষের। এই ঘটনায় শিক্ষক সহ হোষ্টেল কর্ত্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে বাঁকুড়া সদর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করলেন নিগৃহিত ছাত্রের বাবা গোপাল কুণ্ডু।

খবরে প্রকাশ, কলকাতার বাগমারি লেন এলাকার বাসিন্দা গোপাল কুণ্ডুর ছেলে সূবর্ণ কুণ্ডু বাঁকুড়া শহর সংলগ্ন দামোদরপুর- পুয়াবাগানের একটি বেসরকারী ইংরেজী মাধ্যম স্কুলের দশম শ্রেণীর ছাত্র। সে স্কুলের হোষ্টেলে থেকেই পড়াশুনা করে। সুবর্ণ কুণ্ডু নামের ছাত্রের বাবা গোপাল কুণ্ডুর অভিযোগ, তার ছেলেকে তিন দিন ধরে খেতে না দিয়ে রাত দেড়টা নাগাদ ঘুম থেকে তুলে খোলা মাঠে নিয়ে গিয়ে ‘পাশবিকভাবে অত্যাচার’ করা হয়েছে। মারের চোটে তার ছেলের ডান হাতের কড়ে আঙ্গুল ও পায়ে গুরুতর আঘাত পায়।

ঘটনার পর থেকে চার দিন তার সাথে ছেলের যোগাযোগ করতে দেওয়া হয়নি ও তিন দিন খেতে দেওয়া হয়নি বলে তিনি অভিযোগ করেন। তিনি এই ঘটনায় যুক্ত থাকার অভিযোগ তুলে হোষ্টেল সুপার জনৈক সুশান্ত, শিক্ষক রবি কুমার ও সম্পাদক প্রসূণ সরকারের নামে বাঁকুড়া সদর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। একই সঙ্গে এই ঘটনায় যুক্ত ব্যক্তিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানিয়েছেন তিনি।

এবিষয়ে সংশ্লিষ্ট স্কুল কর্ত্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে দায়িত্বপ্রাপ্ত সম্পাদক প্রসূণ সরকার ঐ ছাত্রকে ‘থাপ্পড়’ মেরেছিলেন স্বীকার করে বলেন, মারধোরের ঘটনায় যুক্ত হোষ্টেলের দায়িত্বে থাকা জনৈক সুশান্ত পাত্র মারধোর করেছেন। ঘটনার দিন কয়েকজন ছাত্র জানালার খোলা রডের সুযোগ নিয়ে বেরিয়ে চলে গিয়েছিল। তাদের পুয়াবাগান থেকে ধরে হোষ্টেলে ফেরৎ আনা হয়। একই সঙ্গে ঐ ছাত্র বেশ কিছু অপরাধের সঙ্গে যুক্ত দাবী করে তিনি করেন। এর বাইরে তিনি কোন মন্তব্য করতে চাননি। যা বলার স্কুল কর্ত্তৃপক্ষ এবিষয়ে যা বলার বলবেন বলে তিনি জানান।