তিমিরকান্তি পতি (বাঁকুড়া):  রবিবাসরীয় প্রচারে ঝড় তুললেন বাঁকুড়ার দুই কেন্দ্রের সিপিএম প্রার্থী অমিয় পাত্র ও সুনীল খাঁ। প্রচারে মানুষের স্বতঃস্ফূর্ত উপস্থিতি দেখে উজ্জীবিত বাম নেতৃত্ব। দীর্ঘদিন জেলার এই দু’টি লোকসভা কেন্দ্র নিজেদের দখলে থাকার পর ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে এক সঙ্গে দু’টি কেন্দ্রই হাতছাড়া হয় সিপিএমের। এবার সেই হারানো জমি ফিরে পেতেই উঠে পড়ে লেগেছেন দুই বাম প্রার্থী।

বাঁকুড়া লোকসভা কেন্দ্রের সিপিএম প্রার্থী অমিয় পাত্র এদিন হীড়বাঁধ ব্লক এলাকার মলিয়ানে নির্বাচনী প্রচার চালান। কর্মী-সমর্থকদের সঙ্গে নিয়ে এলাকায় মিছিলের পাশাপাশি পথ সভাতেও অংশ নেন তিনি। ব্র্যাণ্ড পার্টি সহযোগে সুসজ্জিত এই মিছিলে সিপিএমকে ভোট দেওয়ার দেওয়ার আবেদনের পাশাপাশি ‘তৃণমূলকে একটি ভোটও লুঠ করতে দেওয়া হবে না’ বলে জোরালো দাবী ওঠে।

সিপিএম কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও বাঁকুড়া লোকসভা কেন্দ্রের প্রার্থী অমিয় পাত্র বলেন, আমরা দুই প্রতিদ্বন্দী প্রার্থী ‘টাকার পাহাড়ে বসে আছেন’। ওনাদের মতো প্রচুর টাকা খরচ করে জৌলুসপূর্ণ প্রচারে ‘চমক’ দেওয়ার কোন মানে হয়না। বাড়ি বাড়ি যাওয়া, ছোটো গ্রুপ মিটিং, দলবদ্ধ প্রচার, জনসভা, সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচার সহ সমস্ত ধরণের প্রচার পদ্ধতিই আমরা অবলম্বন করছি।

তাদের কর্মীরা কত দ্রুত মানুষের কাছে পৌঁছাতে পারছেন, মানুষের কথা শুনছেন সেবিষয়ের উপরই সিপিএম জোর দিচ্ছে বলে তিনি জানান। একই সঙ্গে সিপিএম প্রার্থী মলিয়ানের পথ সভায় তৃণমূল-বিজেপি দুই পক্ষকেই এক হাত নেন। তিনি বলেন, এই দুই দল মুদ্রার এপিঠ-ওপিঠ। সংসদে সাধারণ, গরীব, খেটে খাওয়া মানুষের কন্ঠস্বর একমাত্র বামপন্থীরাই। সেকারণেই সাধারণ মানুষের স্বার্থে বেশী বেশী সংখ্যায় বামপন্থীদের সংসদে পাঠাতে হবে বলেও এদিন অমিয় পাত্র জানান।

অন্যদিকে, ‘দেশ বাঁচাতে বিজেপিকে হঠানো ও বাংলা বাঁচাতে তৃণমূলকে তাড়ানো’র ডাক দিয়ে বিষ্ণুপুর শহরে মিছিল করলো সিপিএম। বিষ্ণুপুর লোকসভা কেন্দ্রে দলের প্রার্থী সুনীল খাঁকে সঙ্গে নিয়ে মিছিলে অংশ নিলেন অসংখ্য বাম কর্মী সমর্থক। দুর্গাপুর লোকসভা কেন্দ্রের চার বারের সাংসদ সুনীল খাঁকে এবার এই কেন্দ্রে প্রার্থী করেছে সিপিএম। তৃণমূল-বিজেপিকে সমানে টক্কর দিয়ে প্রচার চালাচ্ছেন দীর্ঘদিনের অভিজ্ঞ প্রাক্তন সাংসদ ও বর্ষীয়ান এই সিপিএম নেতা।

নিজের জয়ের ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী সিপিএম প্রার্থী সুনীল খাঁ বলেন, প্রার্থী হিসেবে তাঁর নাম ঘোষণার পর প্রচার শুরু করেছি। মানুষের মধ্যে যেভাবে সাড়া পেয়েছি তা অভূতপূর্ব। যেখানেই যাচ্ছি মানুষ এগিয়ে আসছেন। কথা বলছেন, আমাদের কথা মন দিয়ে শুনছেন। এ থেকেই পরিস্কার হাওয়া ঘুরছে। মানুষ বিজেপি ও তৃণমূলের হাত থেকে পরিত্রাণ পেতে কাস্তে, হাতুড়ি, তারা চিহ্নে ভোট দেবেন বলেই বিশ্বাস রাখেন সিপিএম প্রার্থী সুনীল খাঁ।