কুয়ালা লামপুর: যত দিন বাড়ছে উদ্বেগ বাড়াচ্ছে C0VID-19। এমন সময় অ্যাথলিটদের পাশাপাশি অনুরাগীদের সচেতন করার দায়িত্ব তুলে নিচ্ছে বিভিন্ন স্পোর্টস গভর্নিং বডি। তালিকায় নয়া সংযোজন এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশন। বিশ্ব মহামারী করোনার প্রকোপ রুখতে ইতিমধ্যেই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা শুরু করেছে #ব্রেক দ্য চেন সচেতনতা প্রচার।

এশিয়ার ফুটবলের নামীদামী তারকারা তাদের বার্তার মাধ্যমে অনুরাগীদের #ব্রেক দ্য চেন সচেতনতার শরিক করতে চাইছেন। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার গাইডলাইন মেনে চলার কথা বলছেন তারা। এমন সময় #ব্রেক দ্য চেন সচেতনতা প্রচারে এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশন শামিল করল ভারতের ফুটবল আইকন বাইচুং ভুটিয়াকে। বাইচুং ছাড়াও ২০১৮ এএফসি উইমেন্স প্লেয়ার অফ দ্য ইয়ার ওয়াং শুয়াং ও ২০১৮ এএফসি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ উইনার লি ডং-গুক সহ অনেকে সামিল হয়েছেন এএফসি’র সচেতনতা প্রচারে। পরবর্তী দিনগুলোতে আরও একাধিক তারকাকে এই জনসচেতনতা প্রচারে সামিল করবে এএফসি।

এশিয়ান ফুটবলের গভর্নিং বডির এই জনসচেতনাতা মূলক প্রচারে তারকা ফুটবলাররা মূলত করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নিয়মবিধি মেনে চলার পরামর্শ দিয়েছেন। এছাড়াও পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকা, সোশ্যাল ডিসট্যান্সিং প্রভৃতি বিষয়গুলি যথাযথ মেনে চলার বার্তা অনুরাগীদের দিয়েছেন ফুটবলাররা। একইসঙ্গে বাইরে বেরনোরও পরামর্শ দিয়েছেন বাইচুং সহ অন্যান্যরা।

উল্লেখ্য ভারতীয় ফুটবলের পোস্টার বয় কিংবদন্তি বাইচুং ভুটিয়া ভারতের প্রথম ফুটবলার, যিনি আন্তর্জাতিক কেরিয়ারে দেশের হয়ে ১০০ ম্যাচ খেলার নজির গড়েছিলেন। দীর্ঘ এক দশকেরও বেশি সময় দেশের হয়ে খেলার পর ২০১১ অবসরের সিদ্ধান্ত নেন ‘পাহাড়ি বিছে’। এরপর দ্বিতীয় ফুটবলার হিসেবে বাইচুং’য়ের সেই নজির স্পর্শ করেন সুনীল ছেত্রী। পরবর্তীতে সর্বাধিক ম্যাচ খেলার নিরিখেও বাইচুংকে টপকে যান ছেত্রী।

২০১৪ সারাজীবনের স্বীকৃতি স্বরূপ এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশনের হল অফ ফেমে জায়গা করে নিয়েছিলেন বাইচুং।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।