কলকাতা: ক্যান্সার আক্রান্ত রূপালি বল্লভ হলেন দেবাঞ্জন বল্লভের মা ৷ বৃহস্পতিবার যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়ের সঙ্গে মারমুখী অবস্থায় দেখা গিয়েছিল রূপালি দেবীর ছেলেকে৷ টিভিতে সেই ছবি দেখে রীতিমতো উদ্বিগ্ন হন রূপালি দেবী৷ সংবাদ মাধ্যমে এই মায়ের ছেলের জন্য উদ্বেগের কথা তুলে ধরা হয়৷ তিনি বাবুলের কাছে আর্জিও জানান ছেলেকে ক্ষমা করে দেওয়ার জন্য৷ তিনি জানান, উনি যেন ছেলেকে পুলিশে না দিয়ে ক্ষমা করে দেন, কারণ পুলিশে দিলে ছেলের পড়াশোনা এবং জীবন যেন শেষ হয়ে যাবে।

ক্যান্সার আক্রান্ত মায়ের আর্জির কথা জানতে পেরে ইতিবাচক সাড়া দিতে দেখা গিয়েছে বিশিষ্ট গায়ক তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে৷ বাবুল সুপ্রিয় ফেসবুকে মারফত নিগ্রহকারীর মাকে আশ্বস্ত করার বার্তা দিয়েছেন৷ শুধু তাই নয় সেই বার্তায় কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তাঁকে ‘মাসিমা’ বলে সম্বোধন করে ওই লেখার শেষে তাঁকে ‘প্রণাম’ও জানিয়েছেন৷ বাবুল আশা করছেন এই ভুল থেকেই ওই ছেলেটি শিক্ষা নেবে৷

বাবুল লিখছেন, ‘‘চিন্তা করবেন না মাসিমা – আমি কোনো ক্ষতি করবোনা আপনার ছেলের !! ওর ভুল থেকে ও শিক্ষ্য নিক এটাই চাই ! আমি নিজে কারো বিরুদ্ধে কোনো FIR তো করিইনি – কারোকে করতেও দিইনি – আপনি দুশ্চিন্তা করবেন না – তাড়াতাড়ি সেরে উঠুন মাসিমা ! আমার প্রণাম নেবেন৷’’

যেখানে বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে সেদিন বাবুলের নিগ্রহকারীদের প্রতি দিলীপ ঘোষ সহ বিজেপি একাধিক নেতা পাল্টা আক্রমণ করার হুংকার ছেড়েছেন তাতে ওই ক্যান্সার আক্রান্ত মায়ের উদ্বেগ বাড়ার যথেষ্ঠ কারণ রয়েছে বইকি ৷ কিন্তু সেই পরিস্থিতিতে বাবুলের এমন গান্ধীগিরি দেখে ফেসবুকে অনেকেই তার এমন আচরণের ভূয়সী প্রশংসা করেছেন৷ এই বার্তা একদিকে দলের বাইরেও অনেকের কাছে তাঁর গ্রহণযোগ্যতা বাড়িয়ে দেবে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক মহলের একাংশ৷ অন্যদিকে দুদিন ধরে ঘটনা প্রবাহে রাজ্য রাজনীতির আলোচনায় বাবুল এমন ভাবে উঠে আসায় তিনি বিজেপি দলের অন্দরে বহু নেতার চাপ বাড়াচ্ছেন বলে সোশ্যাল মিডিয়ায় নানা রকম মন্তব্য দেখা গিয়েছে ৷