কলকাতা: ইস্ট-ওয়েস্ট নিয়ে কেন্দ্র-রাজ্য সংঘাতের আবহে ফেসবুকে খোলা চিঠি বাবুল সুপ্রিয়র। বৃহস্পতিবার সন্ধেয় বহু প্রতীক্ষিত ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো প্রকল্পের শুভ সূচনা করবেন রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল। অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণপত্রে নাম নেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। এতেই বেজায় চটেছে রাজ্য সরকার। অনুষ্ঠান বয়কটের সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য। কেন্দ্র-রাজ্য় এই সংঘাতের আবহেই মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায়কে বিঁধে ফেসবুকে খোলা চিঠি বাবুল সুপ্রিয়র৷ এর আগে কেন্দ্রের টাকাতেই দূষণহীন বাস পরিষেবার উদ্বোধনে তাঁকেও আমন্ত্রণ জানানো হয়নি বলে দাবি করলেন বাবুল৷

ফেসবুকে বাবুল লিখেছেন, এর আগে তাঁরই মন্ত্রকের একটি প্রকল্পের উদ্বোধনে তাঁকেই আমন্ত্রণ জানায়নি রাজ্য। সুতরাং ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর আমন্ত্রণপত্রে মুখ্যমন্ত্রীর নাম না থাকায় বিন্দুমাত্র অবাক হননি বাবুল। তিনি আরও লিখেছেন, রাজ্যে দূষণহীন ইলেকট্রিক বাসে WBTC-র নাম লিখে চালাচ্ছে রাজ্য সরকার। তথ্য দিয়ে তিনি লেখেন, রাজ্যে দুই ধরনের ইলেকট্রিক বাস চলছে। দু’ধরণের দূষণহীন বাসের একটিতে ৬০ শতাংশ ও অন্যটির ক্ষেত্রে ৭৫ শতাংশ টাকা দিয়েছে কেন্দ্র। মুখ্যমন্ত্রীকে বিঁধে বাবুলের প্রশ্ন, ‘দিদি কি এই তথ্য কখনও জনসমক্ষে এনেছেন? না উনি তা করেননি।’

বাবুল জানিয়েছেন, এর আগে কেন্দ্রে ভারী শিল্প-মন্ত্রকের দায়িত্বে থাকাকালীন তাঁরই উদ্যোগে রাজ্যে দূষণহীন ইলেকট্রিক বাস পরিষেবা শুরু হয়। দূষণহীন বাস বণ্টনের প্রাথমিক তালিকাতেও পশ্চিমবঙ্গের নাম ছিল না। তিনিই তৎপর হয়ে সেই প্রকল্পটি বাংলায় নিয়ে এসেছেন। মন্ত্রকের কর্তাজদের নিরলস প্রচেষ্টাতেই এটি সম্ভব হয়েছে বলে জানিয়েচেন বাবুল। শেষমেশ রাজ্য সরকারের তরফে বিন্দুমাত্র সহযোগিতা না পেলেও বাংলায় যে এই পরিষেবা চালু হয়েছে তাতেই বাবুল খুশি হয়েছেন বলে জানিয়েছেন।

দেশের মধ্যে ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো প্রকল্পেই ১০০ শতাংশ খরচ কেন্দ্রের। ফেসবুকে এমনই দাবি কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়র। বাকি চারটি মেট্রো শহরের সব প্রকল্পেই অর্ধেক খরচ থাকে সংশ্লিষ্ট রাজ্য সরকারের। কিন্তু ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো প্রকল্পে রাজ্যকে এক টাকাও খরচ করতে হচ্ছে না বলে দাবি কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর।

বৃহস্পতিবার ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর সূচনা করবেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণপত্রে রেলমন্ত্রী ও কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হিসেবে বাবুল সুপ্রিয়র নাম থাকলেও নাম নেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। তা নিয়ে রাজ্য যারপরনাই ক্ষুব্ধ হয়েছে। এমনকী এই ইস্যুতে প্রকাশ্যেই কেন্দ্রকে ‘অসভ্য’ বলেও বিঁধেছেন রাজ্যের পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। তবে এসবে বিচলিত নন বাবুল।

এই প্রসঙ্গে বরং রাজ্যকে বিঁধে ফেসবুকে বাবুলের পালটা জবাব, ‘ইলেকট্রিক বাসের ক্ষেত্রে অধিকাংশ টাকা কেন্দ্রীয় সরকারের থাকলেও সেই পরিষেবার সূচনায় দিদির সরকার আমায় ডেকেছিল? না, ডাকেনি। আমিও অবাক হইনি, কারণ আমি রাজ্যের এমন পদক্ষেপের প্রত্যাশাও করিনি। আপনাদের সামনে শুধু এই তথ্যগুলি তুলে ধরলাম। আমারও একটা মন আছে।’

বৃহস্পতিবার সন্ধেয় ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো প্রকল্পের উদ্বোধন। প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল। আপাতত সল্টলেক সেক্টর ফাইভ থেকে যুবভারতী স্টেডিয়াম পর্যন্ত চলবে মেট্রো। অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণপত্রে নাম রয়েছে স্থানীয় সাংসদ কাকলি ঘোষদস্তিদার, বিধায়ক সুজিত বসু ও বিধাননগরের মেয়র কৃষ্ণা চক্রবর্তীর। তবে আমন্ত্রণপত্রে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম না থাকায় অনুষ্ঠান বয়কট করেছেন তাঁরা।